দূর্গাপূজার ছুটি শেষে বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রপ্তানি সচল

    0
    12

     বেনাপোল প্রতিনিধি:  দুর্গাপূজা উপলক্ষে চার দিন বন্ধ থাকার পর বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দরের মধ্যে আবারো আমদানি-রপ্তানি স্বাভাবিক হয়েছে। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) সকালে বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক ( ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

    বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, সাপ্তাহিক ছুটি ও দুর্গাপূজা উপলক্ষে চার দিন বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দরের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ ছিল। আজ সকাল থেকে পুনরায় স্বাভাবিক হয়েছে আমদানি-রপ্তানি।

    বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদার বলেন, সাপ্তাহিক ছুটি ও দুর্গাপূজা উপলক্ষে গত ২৩ অক্টোবর সকাল থেকে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত চার দিন বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দরের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ ছিল। মঙ্গলবার থেকে ফের আমদানি-রপ্তানি সচল হয়েছে।

    সাংবাদিকদের কাছে নালিশ করার জের

    সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রতন কুমার হালদার বলেন, শিশুরা সম্প্রতি বিভিন্ন উচ্ছৃংখল আচরণ করতো গ্লাস, চেয়ার-টেভিল ভাংচুর করতো। শিক্ষকদের কথা ঠিক মতো শুনতো না। এজন্য ৮শিশুকে সংশোধনের জন্য ২মাসের ছুটি দেওয়া হয়েছে। এসব শিশুকে তাদের অভিভাবকদের কাছে বুঝে দেওয়া হয়েছে।

    এ কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ইয়ারুল ইসলাম জানান, খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে একটি নিরপেক্ষ তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করা হবে।

    জেলা প্রশাসক এবং শিশু পরিবার ব্যবস্থাপনা ও মনিটরিং কমিটির সভাপতি আনজুমান আরা বলেন, শিশু পরিবারের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের কিছু ঘাটতি রয়েছে। তাদেরকে সংশোধনের জন্য বলেছি। করোনাকালে শিশুরা খেলাধুলা করতে না পারায় মানসিকভাবে তারা কিছুটা হতাশায় ভূগতে পারে। এখন তাদের বিনোদন এবং খাদ্য-খাবারের চাহিদার বিষয়টি দেখা হচ্ছে। এছাড়া কিছু ছাত্র উচ্ছৃংখল আচরণ করেছে তাদের সংশোধনের জন্য ৮জনকে ২ মাসের জন্য ছুটি দেওয়া হয়েছে।