দারিদ্র্য বিমোচনে বাংলাদেশ, নেপাল ও রুয়ান্ডা তারকা দেশ হিসেবে চিহ্নিত

    0
    7

    বিশ্বে দারিদ্র্যের হার খুব দ্রুত উল্লেখযোগ্য হারে কমে যাচ্ছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ, নেপাল ও রুয়ান্ডার অবস্থান শীর্ষে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে বর্তমান প্রজন্ম জীবদ্দশাতেই দারিদ্র্যমুক্ত দেশ দেখে যেতে পারবে।
    অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘দারিদ্র্য ও মানব উন্নয়ন পদক্ষেপ’ শীর্ষক এক অ্যাকাডেমিক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।
    ‘দ্য গার্ডিয়ান’ পত্রিকায় গতকাল রোববার প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বের বেশ কয়েকটি চরম দারিদ্র্যের দেশ আগামী ২০ বছরের মধ্যে সমূলে দারিদ্র্য উত্পাটন করতে সক্ষম হবে বলে গবেষণায় পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।
    গত সপ্তাহে জাতিসংঘের সর্বশেষ মানব উন্নয়ন সূচক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনেও উল্লেখ করা হয়, বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলো দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে অভাবনীয় অগ্রগতি অর্জন করছে। কমপক্ষে ৪০টি দেশ দারিদ্র্য থেকে বেরিয়ে একটি মধ্যম শ্রেণীর দেশে পরিণত হচ্ছে। বিশ্বের ইতিহাসে এমন দ্রুত ও নাটকীয় অগ্রগতি আর দেখা যায়নি। এই অগ্রগতির মূলে রয়েছে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আবাসন, অবকাঠামো এবং পানির প্রবেশাধিকার খাতে দেশি ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ।
    অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ, নেপাল ও রুয়ান্ডাকে তারকা দেশ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। দারিদ্র্য বিমোচনে অগ্রগতির দিক দিয়ে এই দেশগুলোর পেছনেই রয়েছে ঘানা, তানজানিয়া, কম্বোডিয়া ও বলিভিয়া।
    বহুমাত্রিক দারিদ্র্যসূচকে বঞ্চনা পরিমাপে পুষ্টি, শিশু মৃত্যু, স্কুলে যাওয়া ও উপস্থিতি, জ্বালানি তেল, পানি, স্যানিটেশন, বিদ্যুত্, সম্পদ এবং বাঁধানো মেঝে—এই ১০টি পরিমাপক ব্যবহার করা হয়েছে।
    ২০১০ সালে নতুন এ গবেষণাটির পদ্ধতিটি প্রণয়ন করা হয়। সংশ্লিষ্ট ইনস্টিটিউটের পরিচালক সাবিনা আলকাইর গবেষণাটি সম্পর্কে বলেন, দারিদ্র্য অর্থের চেয়েও বেশি কিছু। এর মধ্যে রয়েছে দুর্বল স্বাস্থ্য, খাদ্যনিরাপত্তাহীনতা, কর্মহীনতা, সহিংসতা ও অবমাননা, স্বাস্থ্যসেবার অভাব, বিদ্যুতের অভাব ও ভালো আবাসনের অভাব।

    দারিদ্র্য বিমোচনে বাংলাদেশ তারকা দেশ হিসেবে চিহ্নিত
    দারিদ্র্য বিমোচনে বাংলাদেশ তারকা দেশ হিসেবে চিহ্নিত

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here