Friday 27th of November 2020 03:41:46 AM
Sunday 27th of April 2014 04:15:14 PM

তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে ভারতের অভিযোগ!

পরিবেশ ডেস্ক
আমার সিলেট ২৪.কম
তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে ভারতের অভিযোগ!

আমারসিলেট24ডটকম,২৭এপ্রিল তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে যখন সরব বাংলাদেশ তখন ভারত কুশিয়ারানদী থেকে অতিরিক্ত পানি নেয়ার অভিযোগ করেছে। ভারতের অভিযোগ, সিলেটেরকুশিয়ারা নদী থেকে অতিরিক্ত পানি নিতে ‘ষড়যন্ত্র’ করছে বাংলাদেশ।ভারতের আসাম থেকে প্রকাশিত অহমিয় ভাষার দৈনিক ‘অসমীয়া প্রতিদিন’ শনিবার এ খবর দিয়েছে।

পত্রিকাটিতে সরকারি বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে প্রকাশিতপ্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ভারতের লোকসভা ভোটে শাসক-বিরোধী ও সাধারণ জনগণব্যস্ত থাকার সুযোগে বাংলাদেশ কুশিয়ারা নদী থেকে অতিরিক্ত পানি নিতে নদীখনন প্রকল্প হাতে নিয়েছে। নদীটিতে এখন খনন কাজ চলছে। এ বিষয়ে উদ্বিগ্নসীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ স্থানীয় প্রশাসন ও কেন্দ্রীয় সরকারকে অবহিতকরেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের খড়াপীড়িত সিলেট অঞ্চলের মানুষদের জন্যনদী খনন করে কৃত্রিম উপায়ে জলধারা সৃষ্টি করে কুশিয়ারা নদী থেকে অতিরিক্তপানি নেয়ার পরিকল্পনা করেছে বাংলাদেশ। আর এই পরিকল্পনায় যদি বাংলাদেশ সফলহয় তাহলে আসামের বারাক উপত্যাকা ধ্বংসের মুখে পড়বে বলে প্রতিবেদনটিতে দাবিকরা হয়েছে।

অসমীয়া প্রতিদিনের প্রতিবেদনে বলা হয়, কুশিয়ারা নদী খনন করে অতিরিক্ত পানিনিতে ১৯৯১ সালে একবার ‘ষড়যন্ত্র’ করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু সে সময় ভারতসরকারের আপত্তির কারণে তা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কুশিয়ারা নদীতে বাংলাদেশের খনন কাজের বিষয়ে উদ্বিগ্নসীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ সীমান্তবর্তী করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসনকে একটিচিঠি দিয়েছে। চিঠির সঙ্গে নদী খননের কিছু ছবিও দিয়েছে বিএসএফ। কিন্তুস্থানীয় জেলা প্রশাসন বা কেন্দ্রীয় সরকারের কোনো কর্মকর্তাই বিএসএফেরউদ্বিগ্নের বিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছে না।

পত্রিকাটির প্রতিবেদনে আশংকা প্রকাশ করে বলা হয়েছে, কুশিয়া নদীতে খনন কাজেসফল হতে পারলে বাংলাদেশ এই নদীটি থেকে সব পানি নিয়ে নেবে। যার ফলে খড়ারকবলে পড়বে আসামের বারাক উপত্যাকার তিনটি জেলা করিমগঞ্জ, হাইলাকান্দি ওকাছাড়। এ জেলা গুলোর পানির একমাত্র উৎস হলো এই কশিয়ারা নদী।সুত্রঃ ওয়েবসাইট


সম্পাদনা: News Desk, নিউজরুম এডিটর

আমারসিলেট২৪.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Place for advertisement
Place for advertisement

সর্বশেষ সংবাদ


সর্বাধিক পঠিত

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc