Thursday 26th of November 2020 03:37:43 PM
Sunday 19th of January 2014 04:13:14 PM

তথ্য প্রযুক্তি আইনটি বিএনপির আমলেই হয়েছিলঃড.শাহদীন

উন্নয়ন ভাবনা, তথ্য-প্রযুক্তি, মানবাধিকার ডেস্ক
আমার সিলেট ২৪.কম
তথ্য প্রযুক্তি আইনটি বিএনপির আমলেই হয়েছিলঃড.শাহদীন

আমারসিলেট24ডটকম,১জানুয়ারীঃ  তথ্য প্রযুক্তি আইনকে সরকারের অস্ত্র হিসেবে দেখছেন আইন বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক। তার মতে ২০০৬ সালের তথ্য প্রযুক্তি আইনটি বিএনপির আমলেই হয়েছিল। যা এখন তাদের বিরুদ্ধেই প্রয়োগ হচ্ছে। সংবাদ মাধ্যমের ওপর এ আইনের প্রয়োগকে বাক স্বাধীনতার ওপর আঘাত করবে বলে মনে করেন তিনি। বিবিসিকে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, যারা সংবাদ প্রকাশ করছেন বা তথ্য ছড়াচ্ছেন তাদের ভুল ত্রুটি থাকতে পারে। ধরে নিলাম যে উদ্যোশ্য প্রণোদিতভাবে তারা সংবাদ প্রকাশ করছে। সেটাকে মোকাবিলা করার জন্য কঠোর ফৌজদারি আইন প্রয়োগ করা হলে, গ্রেপ্তার করলে, ওই সব প্রতিষ্ঠান বন্ধ করলে সেটা নিঃসন্দেহে বাক স্বাধীনতার উপর আঘাত। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে কেউ মিথ্য সংবাদ ছড়ালে বা যদি উস্কনিমূলক সংবাদ ছড়ায়, তখন তা মোকাবিলার জন্য, অন্য ধরণের আইনি কাঠামো দরকার। কঠোর শাস্তির আইনি কাঠামো এবং যেখানে পুলিশকে অগাধ ক্ষমতা দেয়া হয়েছে, তা অপপ্রয়োগ হতে বাধ্য। এখানে স্পষ্টত যখন ফৌজদারি আইনে, বিষয়টাকে বিরাট অপরাধ বানিয়ে কঠোর শাস্তির বিধান রাখা হয়। তখন শাসক দলের একটা সাধারণ প্রবণতা হয়, ওই ফৌজদারি আইন ব্যবহার করে, কঠোর শাস্তি প্রয়োগ করে যারা তাদের সমালোচনা করে, ভিন্ন মত উপস্থাপন করে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া। এতে সমাজের ক্ষতি হয়, গণতন্ত্রের ক্ষতি হয়, বাক স্বাধীনতা রুদ্ধ হয়। সরকার এটা ব্যবহার করছে, এবং করবে। এই প্রবণতা সবসময় লক্ষ করা গেছে। প্রতিপক্ষ দমনের হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার হচ্ছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, শুধু রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ নয়। এটা সবাইকেই দমনের হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার হবে। আসল কথাটা হল, শুরু হয় হয়তো একটা নির্দিষ্ট গোষ্ঠীকে বা একটা নির্দিষ্ট দলকে টার্গেট করে। তারপরে এটা আস্তে আস্তে ছড়িয়ে পড়ে। এই সব আইনের সবচেয়ে দুর্ভাগ্যজনক দিক হল, যারা এই আইনগুলি প্রণয়ন করে, এবং ভাবে যে তার প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবহার করবে। পরবর্তীতে এই খারাপ আইনগুলি তাদেরই জন্য বুমেরাং হয়ে যায়। ২০০৬ তথ্য প্রযুক্তি আইনটি এর আগে কিন্তু বিএনপি সরকারের আমলে হয়েছিল। এখন এটা তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবহার হচ্ছে। তিনি বলেন, যদি পত্রপত্রিকার তথ্য ভুল হয়, সারা দুনিয়াতে যেটা হয়েছে যে, দশলক্ষ বা বিশলক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হয়, তাহলে সংবাদ মাধ্যমগুলি নিজেরাই সাবধানে কাজ করবে। সুত্রঃমানবজমিন


সম্পাদনা: News Desk, নিউজরুম এডিটর

আমারসিলেট২৪.কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Place for advertisement
Place for advertisement

সর্বশেষ সংবাদ


সর্বাধিক পঠিত

এডিটর: আনিছুল ইসলাম আশরাফী, এনিমেটরস্ বাংলা মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক প্রকাশিত
সম্পাদকীয় কার্যালয়: কলেজ রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার।
Email: news.amarsylhet24@gmail.com Mobile: 01772 968 710

Developed By : i-Tech Sreemangal
Email : itech.official@hotmail.com
Facebook : http://facebook.com/itech.ctc