ডিএনএ টেস্টে প্রমাণঃধর্মের কাটি বাতাসে নড়ে

    0
    10

    আমারসিলেট24ডটকম,০২ডিসেম্বরঃ  ডিএনএ টেস্টে প্রমাণিত হল, যারা স্বামী-স্ত্রী তারা আদতে ভাই-বোন। তারা ভালবেসে ঘর সংসার করছেন বেশ কিছুদিন ধরে। কিন্তু জৈবিক সম্পর্কের বিচারে তারা ভাই-বোন। সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে চিনের জিয়াংজি প্রদেশে। স্বামী-স্ত্রী মিলে সুস্থ সফল মাতৃত্বের প্রত্যাশায় নিজেদের ডিএনএ পরীক্ষা করাতে গিয়েছিলেন ওই দম্পতি। কিন্তু তাদের টেস্ট রিপোর্ট দেখে হতবাক ফুরং ফরেন্সিক সেন্টারে নিয়োজিত কর্মীরা। ওই দম্পতির ডিএনএ টেস্টে ৯৯ শতাংশ জিনগত মিল পাওয়া গিয়েছে। এই ঘটনার কথা জানাজানি হতেই চাঞ্চল্যকর এ তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে তাদের গ্রামে। সবকিছু শুনে ওই মহিলার বাবা জানিয়েছেন এক অজানা গোপন সত্য। যা তিনি এতবছর ধরে নিজের মাঝে চেপে রেখেছিলেন।

    ঘটনায় প্রকাশ,ছেলেটির মা-কে ভালবাসতেন মেয়েটির বাবা। তাদেরই অবৈধ সন্তান মহিলার স্বামী। পরে তিনি মেয়েটির মা-কে বিয়ে করেন। সংসার শুরু করার পর তার অবৈধ ছেলে ও তার মায়ের সঙ্গে আর কোনও সম্পর্কই রাখেননি মেয়েটির বাবা। তাদের কোনও দায়িত্বও নিতে চাননি। ফলে দু’জনের মা আলাদা হলেও জিনগতভাবে বাবা একজনই। একই গ্রামে আলাদা পরিবারে বড় হওয়া ওই ছেলে মেয়ে দুটি পরে বিয়ে করেন। ছেলেটির মা ২০ বছর আগে মারা গিয়েছেন। ফলে সত্যি ঘটনাটা ওই দম্পতির বাবা ছাড়া আর কেউ জানতেন না। যদিও প্রতিবেশীরা তাদের চেহারার সাদৃশ্য নিয়ে মাঝে মাঝে সন্দেহ প্রকাশ করতেন হাসিঠাট্টাও করতেন। কিন্তু এতদিন কেন তাদের বাবা এই সত্য প্রকাশ করেননি সে বিষয়ে কিছু জানা যায় নি। এমনকী নিজের অবৈধ ছেলের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে হচ্ছে জেনেও কোনও আপত্তি করেননি। হয়তো লোকলজ্জার ভয়েই তিনি গোটা ব্যাপারটি চেপে যান।কথায় বলে “ধর্মের কাটি বাতাসে নড়ে”  ধর্ম আর বাতাসের কলের আদি সম্পর্কের সত্যতা প্রমাণ করে ফের তা নড়ে উঠল প্রায় তিন যুগ পরে।
    সূত্রঃআনন্দবাজার

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here