বহু পত্রিকার সাংবাদিক মাদক সম্রাট উজ্জ্বল’র আস্তানায় অভিযানে

    0
    121

    ১৯লাখ টাকাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য উদ্ধার,স্ত্রী আটক

     

    নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইলের একাধিক মাদক মামলার আসামী ডজন খানের পত্রিকার সাংবাদিক পরিচয়দানকারী আলোচিত মাদক সম্রাট উজ্জ্বল রায়ের আস্তানায় অভিযান চালিয়েছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। সোমবার (৫ আগষ্ট) রাত সাড়ে ৯টা হতে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত দুইঘন্টাব্যাপী অভিযান পরিচালিত হয়।

    নড়াইলের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট (এনডিসি) মুহাম্মদ আল-আমিনের নেতৃত্বে অভিযানকালে মাদক সম্রাটের আস্তানায় বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রাখা ১৮ লাখ ৭০ হাজার ৪শত ৬৩ টাকা, প্রায় দুইশ গ্রাম গাজাসহ খাওয়ার সরঞ্জমান, ১২টি ফেনসিডিলের খালি বোতল, ১৭ প্যাকেজ সিগারেট সহ অন্যান্য উপকরণ উদ্ধার করা হয়। তবে অভিযানকালে উজ্জ্বল রায়কে পাওয়া না গেলেও তার দ্বিতীয় স্ত্রী দীপালী রায়কে আটক করা হয়েছে।

    উল্লেখ্য, এই উজ্জল রায় যশোর ও নড়াইলে মাদকসহ কয়েকবার পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে। এসব মামলা এখনও আদালতে বিচারাধীন। মাদকের ব্যবসায় নির্বঘ্নে চালিয়ে যেতে উজ্জ্বল রায় যশোর, খুলনা ও ঢাকা হতে প্রকাশিত ডজন খানেক খ্যাত-অখ্যাত পত্রিকা ও বেশ কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের সাংবাদিক বলে দাবি করতো।

    উদ্ধারকৃত বিভিন্ন প্রকারের মাদক ও টাকার বান্ডিল 

    সাংবাদিতার পরিচয় দিয়ে নড়াইলের পুলিশ প্রশাসনের সাথে বিশেষ সম্পর্ক গড়ে তোলে। যশোর থেকে প্রকাশিত দৈনিক যশোর, সমাজের কাগজসহ একাধিক পত্রিকায় তার অধিকাংশ নিউজ ছাপা হতো পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকান্ড নিয়ে।

    অভিযোগ রয়েছে মাদক ব্যবসা চালাতেই সাংবাদিকতাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করেছে। তার মাদক ব্যবসা ছিল অনেকটা ওপেন সিক্রেট। জেলার প্রভাবশালী একটি মহলের ছত্রছায়ায় সে দিব্যি মাদক ব্যবসা চালালেও এতদিন ছিল ধরাছোঁয়ার বাইরে।

    মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের ইন্সপেক্টর বিদ্যুৎ বিহারী নাথ জানান, বিপুল পরিমান এ অর্থ একটি ভাঙ্গা ঘরের বিভিন্ন কৌটা, ময়লাযুক্ত জায়গা, কাঠ-খড়ি রাখার জায়গাসহ কমপক্ষে ৫০টি স্থান থেকে বিপুল পরিমান এ অর্থ উদ্ধার করা হয়েছে।

    উদ্ধারকৃত বিভিন্ন প্রকারের মাদক টাকার বান্ডিল

    নড়াইলের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মুহাম্মদ আল আমিন বলেন, অভিযানকাালে ছোট একটি ঘর থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা সহ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়। তার ধারনা একটি মাদক সিন্ডিকেট এ অর্থ নিয়ন্ত্রন করছে। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নেজারত ডেপুটি কালেক্টরেট (এনডিসি) এর কার্যালয়ে এনে পুলিশ কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ জেলা কার্যালয়ের কর্মকর্তা, সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের উপস্থিতিতে উদ্ধারকৃত টাকা গণনা করে মোট ১৮ লাখ ৭০ হাজার ৪শত ৬৩ টাকা পাওয়া যায়।

    এছাড়া প্রায় দুইশ গ্রাম গাজাসহ খাওয়ার সরঞ্জমান, ১২টি ফেনসিডিলের খালি বোতল, ১৭ প্যাকেজ সিগারেটসহ অন্যান্য উপকরণ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় উজ্জ্বল রায়ের স্ত্রী দীপালী রায়কে আটক করা হয়েছে।বিভিন্ন বিষয় যাচাই-বাছাই করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।