টাকার লোভে শিশু নির্যাতন করে ইমুতে ভিডিও পাঠাতেন চাচা

    0
    10

    সানিউর রহমান তালুকদার,নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) থেকে: টাকার লোভে পিতৃহারা ৬ বছরের শিশু জিসানকে নগ্ন করে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনায় তোলপাড় হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ। আপন চাচার নির্যাতনের এই দৃশ্য ভিডিও করে সৌদি প্রবাসী শিশুর মায়ের কাছে পাঠিয়ে অর্থ দাবি করা হচ্ছিল।

    সম্প্রতি গত দুই মাস আগে দুই সন্তানকে দেবর স্বপন মিয়ার কাছে রেখে ভাগ্যবদলের আশায় গৃহকর্মীর চাকরি নিয়ে সৌদিতে পাড়ি জমান সুমনা বেগম। যাওয়ার সময় দেবরকে একটি রিকশা কিনে দেয়া ছাড়াও ২০ হাজার টাকা হাতে দিয়ে যান। সৌদি আরব গিয়ে সুমনা আরও টাকা পাঠান।

    ফলে টাকার নেশায় পেয়ে বসে স্বপনকে। আরও টাকার আশায় শিশু জিসানকে পা উপরের দিকে উল্টো করে ঝুলিয়ে নির্যাতনের দৃশ্য ইমুতে মায়ের কাছে পাঠিয়ে আরও টাকা দাবি করেন। মোবাইলে এ দৃশ্য দেখে মা সুমনা বেগম দ্রুত দেশে ছুটে আসেন। এরই মধ্যে ওই ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

    গতকাল ভোরে পুলিশ স্বপন মিয়াকে গ্রেফতার করেছে।

    গ্রেফতারের পর শিশুর মা সুমনা বেগম থানায় মামলা করেন। গতকাল এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল​া বলেছেন, শিশুটির মায়ের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকার আশায় স্বপন তার ওপর নির্যাতন চালায়। নির্যাতনের ভিডিও সৌদি প্রবাসী শিশুটির মায়ের কাছে পাঠিয়ে দিত, যাতে মা দুর্বল হয়ে আরও টাকা পাঠায়। তবে তার মা সৌদি আরবে তার মালিকের কাছে নির্যাতনের ভিডিও দেখালে ছুটি নিয়ে তিনি দেশে আসেন।

    মঙ্গলবারে ওই ভিডিও ফুটেজটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে গ্রেফতার করা হয় নির্যাতনকারী স্বপনকে।

    এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার ওসি আজিজুর রহমান বলেন, গতকাল ভোরে পুলিশ শিশু জিসানের চাচা স্বপন মিয়াকে গ্রেফতার করেছে। শিশুর মা সুমনা বেগম বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন।

    এ বিষয়ে, উপজেলার চরগাঁও গ্রামের বাসিন্দারা জানান, পিতৃহারা দুই শিশুকে দাদা-দাদি-চাচার কাছে রেখে সৌদি আরব যান সুমনা। সন্তানদের দেখা শোনার জন্য স্বপনকে টাকাও দিয়ে যান। টাকার জন্য ৬ বছরের ভাতিজাকে নগ্ন করে নির্যাতন করে এবং এ ভিডিও তার মায়ের কাছে পাঠিয়ে দেয়।