জৈন্তাপুর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সংবর্ধনা

    0
    71

    রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের জৈন্তাপুরে প্রথম বারের মত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদান করে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড।

    গতকাল সকাল ১১টায় জৈন্তাশ্বরী ইরাদেবী বিচারালয়ে বিজয় মেলার-২০১৯ উপলক্ষ্যে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদের পরিচালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার সিরাজুল হক, প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ।

    বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বনিক, অফিসার ইনচার্জ তদন্ত ওমর ফারুক, চারিকাটা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম চৌধুরী তোফায়েল, দরবস্ত ইাউপি চেয়ারম্যান বাহারুল আলম বাহার, জৈন্তাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার হাজী মোঃ আনোয়ার হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রশিদ, দপ্তর সম্পাদক সিদ্দিক আলী, যাদবময় বিশ্বাস, নিপেন্দ্র কুমার দে, মিরন মেম্বার, আক্কেল আলী, হরমুজ আলী, আব্দুস সামাদ, আফতাব আলী, নিজপাট ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াহিয়া,জৈন্তাপুর উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি ফারুক আহমদ, জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক মোঃ আনোয়ার হোসেন, গোয়াইনঘাট উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি কামাল আহমদ, জৈন্তাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সিনিয়ন সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম, সহ-সভাপতি আব্দুল কাদির,সাংগঠনিক সম্পাদক মনির আহমদ,আমরা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি মাষ্টার জসিম উদ্দিন, সঞ্জয় বিশ্বাস,সাইফুল ইসলাম বাবু, মুজিবুর রহমান।

    প্রধান অতিথির বক্ত্যবে কামাল আহমদ বলেন, যে জাতী বা এলাকাবাসী গুনিজনদের সম্মান দিতে জানেন না, সেখানে গুনিজন জন্মায় না। জৈন্তাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড এই প্রথম বারের মত এরকম একটি ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন করেছে সত্যিকার অর্থে প্রসংশার দাবী রাখে। আগামীতে এই ধারা অব্যহত রাখতে এবং আপমর জনসাধারনের জন্য আনন্দ বিনোদন দিতে বিজয় মেলার আয়োজন করেন সেজন্য তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই।

    আগামীতে মাস ব্যপি বিজয় মেলার আয়োজন করবেন এবং বিজয় মেলায় মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক প্রমাণ্য অনুষ্ঠান মুক্তিযোদ্ধের স্মৃতি ইত্যাদি নিয়ে একটি ষ্টল রাখার কথা বলেন। ফলে মেলায় আগত দর্শনার্থী সহ শিক্ষার্থীরা জানতে পরবে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক জ্ঞান অর্জন করতে পারবে। পরে অনুষ্ঠানের অথিতিরা মাহান মুক্তিযোদ্ধোর বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা ক্রেষ্ট ও বিভিন্ন গুনিজনকে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন।