জৈন্তাপুরে ৬টি ইউনিয়নে ২৩টি মন্ডপে দূর্গাপুজার প্রস্তুতি

0
462
জৈন্তাপুরে ৬টি ইউনিয়নে ২৩টি মন্ডপে দূর্গাপুজার প্রস্তুতি
ছবি: জৈন্তাপুর শ্রী শ্রী কালীবাড়ী পুজা মন্ডপে প্রতিমায় শেষ মুহুত্বের কাজ করছেন সুনামগঞ্জের কারিঘর নিরেন্দ্র দাস।

রেজওয়ান করিম সাব্বির, জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধি: সিলেটের জৈন্তাপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৬টি ইউনিয়নের ২৩টি পুজা মন্ডপে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপুজা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে পুজার যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে। অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনা এড়াতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

৪ অক্টোবর ২০২১ ইং তারিখ পর্যন্ত জৈন্তাপুর উপজেলার বিভিন্ন পুজামন্ডপ ঘুরে জানা যায়, বিশ্বব্যাপী বৈশ্বিক মহামারি করোনা কারনে বিগত বৎসরে অনেকটা উৎসব বিহিন ভাবে হিন্দু ধর্মীয় সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দূর্গাপুজা হয়। চলতি বৎসরে মহামারি করোনা ভাইরাস কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ার কারনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হিন্দু ধর্মীয় সবচেয়ে বড় উৎসবের জন্য প্রস্তুতি জোরেশোরে শুরু হয়েছে। ৫ অক্টোবর রাতের মধ্যে প্রতিটি মন্ডপের প্রতিমা গুলোতে রংতুলির আছড়ে সৌন্দর্য্য বর্ধনের কাজ শেষ হবে বলেন জানান প্রতিমা কারিগর সুনামগঞ্জের নিরেন্দ্র দাস।

আগামী ১৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ষষ্ঠিপুজার মধ্যে দিয়ে ৫দিন ব্যাপী হিন্দু ধর্মীয় সার্বজনিন শারদীয় দূর্গাপুজা উপজেলার ২৩টি মন্ডপে শুরু হবে এবং সোমবার মহা দশমীবিহিত পুজার মাধ্যমে দেবী বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে পুজা সম্পন্ন হবে। কোভিট-১৯ করোনা পরিস্থিতির জন্য উৎসবের আমেজে কিছিুটা ভাটা পড়ার আশংঙ্কা করছেন আয়োজকরা।

জৈন্তাপুর উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নিপেন্দ্র কুমার দাশ ও সাধারণ সম্পাদক শ্রী দুলাল চন্দ্র দেব বলেন, আমাদের ধর্মীয় সবচেয়ে বড় উৎসব হল শ্রী শ্রী শারদীয় দূর্গোৎসব। উৎসবটি ঘিরে সম্প্রদায়ের মধ্যে অনেকটা আনন্দ বিরাজ করছে। কোভিট-১৯ পরিস্থিতির মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসবটি পালনে আমাদেকে কিছুটা বেগ পেতে হবে। ইতোমধ্যে উপজেলা পুজা উদযাপন কমিটির মাধ্যমে ২৩টি পুজা মন্ডপে সার্বিক কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আমরা আশাবাদি শান্তিপূর্ণ ভাবে ইশ্বরের কৃপা ও আর্শীবাদে অতিতের মত সুন্দর ভাবে পুজা সমাপ্ত করতে পারব।

জৈন্তাপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগির আহমদ বলেন, জৈন্তাপুরের ২৩টি মন্ডপে দূর্গাপুজা অনুষ্টিত হবে। ইতোমধ্যে প্রতিটি মন্ডপে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ হতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা এবং মন্ডপে আনসার সদস্যদের নিয়োজিত রাখা হয়েছে। পুজা শুরুর আগেই প্রতিটি মন্ডপের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ সদস্য নিয়োজিত করা হবে।

জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কামাল আহমদ বলেন, সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসবে সকাল পুজারীবৃন্দদের দূর্গাপুজার শুভেচ্ছা জানাই। পুজারীরা নিরাপদে তাদের ধার্মীয় উৎসব পালন করতে পারে সেজন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছে।

জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূসরাত আজমেরী হক বলেন, উপজেলার সর্বস্তরের সনাতন ধর্মালম্বীদেরকে শারদীয় দূর্গাপুজার শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। শান্তিপূর্ণ ভাবে ধর্মীয় উৎসব পালনের জন্য উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ হতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here