জৈন্তাপুরে বিজয় মেলার শুভ উদ্বোধন

    0
    18

    রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের জৈন্তাপুরে প্রথম বারের মত জৈন্তাপুর উপজেলার ঐতিহাসিক জৈন্তেশ্বরী বাড়ী (বিচারালয়ে) মাস ব্যাপি বিজয় মেলার শুভ উদ্ভোধন।
    গতকাল ১৫ ডিসেম্বর রবিবার সকাল ১১টায় প্রধান অতিথি হিসাবে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কামাল আহমদ আনুষ্ঠানিক ভাবে ফিতা কেটে বিজয় মেলার উদ্বোধন করেন। মেলা প্রাঙ্গনে মুক্তিযোদ্ধের পতাকা ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজুল হক ও কামাল আহমদ।
    পতাকা উত্তোলন শেষে আলোচনা সভায় বিজয় মেলা আয়োজন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি শফিকুল ইসলাম পাঠোয়ারীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বনিক, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মোঃ আনোয়ার হোসেন, নিজপাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আতাউর রহমান বাবুল, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি ফারুক আহমদ, সমাজসেবী আব্দুল মতিন শাহিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ, মিরন মেম্বার, হরমুজ আলী, আব্দুস সামাদ, সিদ্দিক আলী, আক্কেল আলী, নিপেন্দ্র কুমার দে, নিজপাট ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াহিয়া মেম্বার, বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাংগঠনিক সম্পাদক মনির আহমদ, আব্দুস সালাম, আব্দুল কাদির, মুজিবুর রহমান, হোসন আহমদ, আবু সালেহ, কাওছার আহমদ, শাহিদুর রহমান শাহীন, শাহেদ আহমদ, আতিকুর রহমান মনাফ, সোহেল আহমদ, নজির আহমদ, আল আমিন, জামাল আহমদ, সঞ্জয় দেব, আজির উদ্দিন, ইমরুল হাসান সাদ্দাম দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।
    প্রধান অতিথির বক্তব্যে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কামাল আহমদ বলেন, আজ আমরা বাংলার মুক্ত জমিনে স্বাধীন ভাবে চলাফেরা করতে পারছি যাদের জন্য তারা হলেন আমাদের দেশ ও জাতীর সূর্য সন্তানদের কারণে। জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে জীবন বাজি রেখে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে দেশকে শত্রুমুক্ত করে স্বাধীন দেশ হিসাবে বিশ্বের মানচিত্রে স্বাধীন বাংলাদেশের নাম লিখেন। আজ আমরা তাদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি। বিজয়ের মাসে তাদের জৈন্তাপুর উপজেলায় প্রথম বারের মত মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সদস্যরা বিজয় মেলার আয়োজন করেছে সেজন্য আমি তাদের উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানাই সেই সাথে সুষ্ট সুন্দর ভাবে মেলা সমাপ্ত করবে বলে আমি আশাবাদ ব্যক্ত করছি।