জৈন্তাপুরে অনিয়মের মধ্যে ভূমিহীন ও গৃহহীন তালিকা সম্পাদন

    0
    13

    “প্রধানমন্ত্রীর মুজিব শতবর্ষের উপহার বঞ্চিত জৈন্তাপুরের অসহায়,পঙ্গু,ভূমিহীন ও গৃহহীনরা”

    রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ জৈন্তাপুরে মুজিব বর্ষে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের তালিকায় অনিয়ম, উপজেলা চেয়ারম্যান সরজমিন তদন্তে ১২০ জনের তালিকা হতে ২৩ জনের নাম বাতিল নির্দেশ দিলেও রহস্যজনক কারনে ৬ জনকে রেখেই ভূমির দলিল সম্পাদন। প্রধানমন্ত্রীর উপহার বি ত জৈন্তাপুরের অসহায়, ভূমিহীন, ঘরহীন, পঙ্গুরা।
    সিলেটের জৈন্তাপুরে নানা অনিয়ম দূর্নিতির মাধ্যমে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে ভূমিহীন ও গৃহহীন, অসহায় পঙ্গুদের জন্য গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর গৃহ প্রদানের নীতিমালা মোতাবেক উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক ৩৩০জনের তালিকা তৈরী করে। তৈরীকৃত তালিকা নিয়ে শুরু হতে উপজেলা জুড়ে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠে। সর্বশেষ ১৪জানুয়ারী অতি গোপনে ৩৩০জনের নামের তালিকা হতে ১২০জনের নামে জমি রেজিষ্ট্রেশন কার্যক্রম শুরু করে উপজেলা প্রশাসন। দ্রুত বিষয়টি উপজেলা জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। এনিয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধি সহ ভূমিহীন ও গৃহহীনরা প্রতিবাদ মুখর হয়। উপজেলা প্রশাসনের নিয়মিত উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির বৈঠক বয়কট করে ইউপি পরিষদের চেয়ারম্যানগণ। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন মধ্যস্থতায় আইন শৃঙ্খলা বৈঠকে যোগদান করে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানগণ।

    অপরদিকে ঘর বরাদ্ধের অনিয়মের বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ইমরান আহমদ এম.পি কে অবহিত করা হয়। মন্ত্রী মহোদয় তৈরীকৃত তালিকার ১ম পর্যায়ের ১২০জন সহ পরবর্তী ২১০জনের তালিকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদকে সরেজমিনে তথ্য যাচাই বাছাই করা নির্দেশদেন এবং উপজেলা চেয়ারম্যান কর্তৃক যাচাই বাছাই শেষ না করা পর্যন্ত জমি রেজিষ্টেশন স্থাগিত রাখার মৌখিক নির্দেশদেন। মন্ত্রী মহোদয়ের নির্দেশ ১৫ জানুয়ারী চেয়ারম্যান কামাল আহমদ স্থানীয় মিডিয়াকর্মী, ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের নিয়ে বাড়ী বাড়ী গিয়ে তালিকা যাচাই বাছাই করে জৈন্তাপুর ও নিজপাট ইউপির আওতাভূক্ত তালিকা হতে যাদের পাকাবাড়ী-ঘর, নিজস্ব ভূমি রয়েছে এবং সরকারী দপ্তরের চাকুরী রয়েছে ২৩ জনের নাম চিহ্নিত করে ১২০জনের তালিকা হতে তাদের নাম বাতিলের সুপারিশ করেন।

    কিন্তু রহস্যজনক কারনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা পারভীন মৃত মোঃ মতলিব আলীর মেয়ে রতœা বেগম তালিকা নং-৩৮ যাহার দলিল নং-২৬০, জৈন্তাপুর ভূমি অফিসের এমএলএস মৃত জিলা মিয়ার ছেলে রফিক আহমদ তালিকা নং ৪২, যাহার দলিল নং-২৬১, আবুল হোসেনের স্ত্রী মোছাঃ আমিনা বেগম তালিকা নং-৪৪, যাহার দলিল নং-২৬৮, মৃত কাজী ইদ্রিস আলীর ছেলে কাজী জয়নাল আবেদীন তালিকা নং-৫৩, যাহার দলিল নং-২৩৯, উপজেলা চেয়ারম্যান অফিসের মালি সাইফুল ইসলামের বোন মাসুক মিয়ার স্ত্রী মোছাঃ আলোয়ারা বেগম তালিকা নং-২৫৭, যাহার দলিল নং-২৫৭ এবং খোকামনি দত্তের ছেলে বাদল মনি দত্ত তালিকা নং-৬৪, যাহার দলিল নং-২৬২।

    এছাড়া চিকনাগুল ইউপির ৮জনের নাম বাতিলের জন্য বলা হলেও কাউকে বাদ দেওয়া হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর উপহার বি ত চিকনাগুল ইউপির গৃহহীন, ভূমিহীনরা উপজেলা প্রশাসনের নিয়োজিত টিকাদার ইউপি সদস্য মোঃ নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে প্রতিটি ঘর বরাদ্ধের আগে সরকারী নীতিমালা অমান্য করে টাকা আদায়ের অভিযোগ করেন। ইউপি সদস্য স্থানীয় সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে ১৫হাজার হতে ৩০হাজার টাকা আদায়ের কথা স্বীকার করেন এবং বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানেন বলে জানান।
    এদিকে ২২ জানুয়ারী চিকনাগুল ইউপির আইসক্রিম ফ্যাক্টরী এলাকায় সিলেট-তামাবিল মহাসড়কে মানব বন্ধনের ডাক দেয় ঘর বি তরা। মানব বন্ধন কর্মসূচীর বিষয়টি জানতে পেরে জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ মন্ত্রী মহোদয় এলাকায় আসছেন এবং উনাকে বিষয়টি জানানো হবে এবং নিরিহরা যাহাতে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হতে বি ত না হন আশ্বাস দিলে তারা মানব বন্ধন প্রত্যাহার করে।
    জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল আহমদ প্রতিবেদককে জানান, মুজিব বর্ষের গৃহহীন ও ভূমিহীনদের তালিকা প্রস্তুত নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানদের সাথে প্রশাসনের সমন্বয় না থাকায় কারনে চেয়ারম্যানগণ আইন শৃঙ্খলা বৈঠক বয়কট করেন। আমরা মধ্যস্থতা মাধ্যমে বিষয়টি সুরাহা হলে চেয়ারম্যানরা বৈঠক উপস্থিত হন।

    মন্ত্রী মহোদয়ের নির্দেশে আমি সরেজমিনে ১২০ জনের তালিকা তদন্ত পূর্বক অভিযুক্তদের যাচাই-বাছাই করে জৈন্তাপুর ও নিজপাট ইউপির ১৫ জন এবং চিকনাগুল ইউপির ৮জনের নাম চিহ্নিত করে তালিকা হতে বাঁধ দেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছি। কিন্তু কি কারনে তালিকা হতে বাদ দেওয়া হয়নি সে বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। চিকনাগুল এলাকায় গৃহহীনরা মানববন্ধন কর্মসূচী পালনের উদ্যোগ গ্রহন করে। আমি তাদেরকে আশ্বাস দিলে তারা মানববন্ধন প্রত্যাহার করে।