জুড়ীতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ৫ বাগানে কর্মবিরতী-অবরোধ

    0
    9

    আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,০২এপ্রিল,জুড়ী (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতা: মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার ধামাই টি কোম্পানীর মালিকানাধীন ধামাই, সোনারূপা, আতিয়াবাগ, পুঁচি ও শিলঘাট চা বাগানের শ্রমিকদের ন্যায্য মজুরী, বকেয়া পাওনা, রেশন, চিকিৎসা, গৃহ নির্মাণ, গ্যাস, বিদ্যুৎ , নিরাপদ পানীয়সহ ২০দফা দাবী আদায়ের লক্ষ্যে চলমান আন্দোলনকে বেগবান করার জন্য জুড়ী শহরের জাঙ্গিরাই ত্রিমোহনীতে পূর্ব ঘোষিত অনির্দিষ্টকালের জন্য সড়ক অবরোধ ও বাগানে কর্মবিরতীর ঘোষনা দেন চা শ্রমিকরা।

    এরই অংশ হিসেবে রোববার (২এপ্রিল) ৫ বাগানের চা শ্রমিক নারী-পূরুষরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে সরকার বিরোধী নানা স্লোগানের   মধ্য দিয়ে ধামাই চা বাগান থেকে জুড়ী শহর হয়ে উপজেলা চত্ত্বরে গিয়ে মিলিত হয়ে (জুড়ী-কুলাউড়া- ঢাকা) মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। বৃষ্টি উপেক্ষ করে শত শত চা শ্রমিক প্রায় আধা ঘন্টা সড়ক অবরোধ করলে দুদিকের দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে জুড়ী থানা পুলিশের একটি দল উপস্থিত হয়েও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে হিমশিম খেতে হয়।

    শ্রমিকরা পুলিশের কোন কথা  মানতে রাজি হয়নি। পরে জুড়ী থানা ওসি জালাল উদ্দিন উপস্থিত হয়ে তাদের দাবীর প্রতি একাত্বতা ঘোষনা করলে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। অত্র ধামাই চা বাগানের শ্রমিক সভাপতি যাদব রুদ্রপাল, সোনারূপার বাদল রুদ্রপাল, আতিয়াবাগের বদই কুর্মি ও শিলুয়ার সভাপতি শূন্য উড়িয়া জানান, আমাদের ৫চা বাগানের দিন মজুর শ্রমিকরা দীর্ঘ দিন থেকে বেতন ভাতা, ঘরবাড়ি মেরামত সহ ২০ দফা দাবী আদায়ের লক্ষ্যে আন্দোলন করলেও বাগান মালিক শাফিয়া আশ্রাফ আলী’র কোনো কর্ণপাত হয়নি।

    অতি শীঘ্রই বাগান মালিক আমাদের ন্যায্য দাবী দাওয়া না মানলে আমরা আরো কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো। এব্যাপারে  বাগান মালিক শাফিয়া আশ্রাফ আলী’র সাথে যোগযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করে সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই, ফোনটি বন্ধ করে দেন। জুড়ী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, কোন প্রকার অপৃতীকর ঘটনা ছাড়াই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হই।

     

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here