জামায়াতের সঙ্গে সম্পৃক্তরা সত্যিকারের মুসলমান নন : আল্লামা শায়খ মাকসুদ রিজভী

    0
    4

    যুদ্ধাপরাধের রায়কে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে জামায়াতের সাম্প্রতিক তাণ্ডবের প্রেক্ষাপটে ৭ মার্চ রাতে জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে এই সেমিনার আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগ।

    সেমিনারে আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল ‘ধর্ম অপব্যাখ্যাকারী জামায়াত-শিবিরের মওদুদীবাদী ইসলামের আগ্রাসন থেকে মোহাম্মদ (স.) এর ইসলাম বাঁচানোর লক্ষ্য এবং বাংলাদেশে ইসলামের নামে জামায়াতে ইসলামীর অনৈসলামিক কার্যকলাপ’।

    বিষয়ের ওপর কুরআন ও হাদিসের আলোকে বক্তব্য রাখেন ভারতের আল্লামা শায়খ ড. ওসমান সিদ্দিকী, পাকিস্তানের আল্লামা শায়খ মাকসুদ রিজভী, বাংলাদেশের আল্লামা শায়খ ইমাম জালাল সিদ্দিকী এবং ইমাম কাজী কাইয়ুম।

    সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের সভাপতি মিসবাহ আহমেদের সভাপতিত্বে এই সেমিনারে সঞ্চালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আলম।

    দলমত নির্বিশেষে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী সমাগম ঘটে এ সেমিনারে।

    মাকসুদ রিজভী বলেন, “মওদুদীবাদের অনুসারী জামায়াতের সঙ্গে সম্পৃক্তরা সত্যিকারের মুসলমান নন। পাকিস্তানে জামায়াতের অস্তিত্ব এখন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে আবদ্ধ।”

    শেখ ওসমান সিদ্দিকী বলেন, “জামায়াত প্রকৃত ইসলামের ঘোরতর বিরোধী। তারা পাকিস্তান, বাংলাদেশ, সিরিয়া, লিবিয়া, সোমালিয়াসহ বিভিন্ন দেশে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত।

    “তারা ইসলামকে তাদের রাজনৈতিক ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে চাচ্ছে ধর্মপ্রাণ মানুষদের ধর্মীয় আবেগকে পুঁজি করে। এভাবেই তারা ইসলামকে ধ্বংস করার গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।”

    জালাল সিদ্দিকী বলেন, “মওদুদীর চিন্তাধারা অনেক আগেই ভ্রান্ত হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। আর এই মওদুদীর অনৈসলামিক কর্মকাণ্ডের আলোকে জামায়াতের লোকজন সারাবিশ্বে সন্ত্রাস করছে।”

    কাজী কাইয়্যুম বলেন, “যে ব্যক্তি কুরআন মানে না, হাদিস মানে না, তিনিই নাস্তিক। মওদুদী ও তার অনুসারী জামায়াতের লোকজন কুরআন-হাদিসের অপব্যাখ্যা করছেন, তাহলে তারাই তো নাস্তিক।”

    যুদ্ধাপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবিতে আন্দোলনরত গণজাগরণ মঞ্চ নিয়ে জামায়াতের অপপ্রচারের বিষয়টি তুলে ধরে আওয়ামী লীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমান বলেন, একাত্তরেও তারা একইভাবে স্বাধীনতাকামী বাঙালিদের নাস্তিক, কাফের, ভারতের চর ইত্যাদি অপবাদ দেয়ার জঘন্য কাজ করেছিল।

    “একাত্তরের মতই আবারো সময় এসেছে বাঙালির ঐক্য গড়া এবং জামায়াত নির্মূল করার।”

    যুবলীগ নেতা মিসবাহ সেমিনার আয়োজনের উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করে বলেন, “নিউ ইয়র্কের বেশ কটি মসজিদে জামায়াত-শিবিরের ঘাঁটি রয়েছে। এসব মসজিদে আমরাও নামাজ পড়ি। তাই মুসল্লীগণকে সচেতন করতে হবে ধর্মের অপব্যাখ্যাকারী ইমাম সম্পর্কে।”

    যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক জানান, এই সেমিনারের উদ্যোগ নেয়ার পরই অনেকে ফোন করে তাকে হুমকি দিচ্ছেন। কদিন আগে তার গাড়িও ভাংচুর করা হয়েছে।

    NY-Seminer-News

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here