কলেজ ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টায় গাড়ীসহ আটক-২

    0
    10

    নূরুজ্জামান ফারুকী,নবীগঞ্জঃ হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ থেকে লাকি পরিবহনের একটি গাড়ী শনিবার সকালে নবীগঞ্জ পৌর এলাকার তিমিরপুর পয়েন্ট থেকে এক কলেজ যাত্রী ওই গাড়ীতে হবিগঞ্জ শহরের যাওয়ার জন্য উঠেন। গাড়ীতে উঠে বসার পর থেকেই হেলপারও সুপারভাইজার কলেজ পড়ুয়া যাত্রীকে উতক্ত উত্ত্যক্ত করে। গাড়ীতে কয়েকজন যাত্রী ছিল তারা গাড়ীতে ঘুমিয়ে পরে,এই সুযোগে গাড়ীর চালক এবং হেলপার ওই কলেজ ছাত্রীর সাথে যৌন হয়রানী করতে শুরু করে। ওই কলেজ যাত্রী হবিগঞ্জ শহরে নামতে যাইলে সুপারভাইজার ও হেলপার কলেজ ছাত্রীকে গাড়ি থেকে না নামিয়ে গাড়ী দ্রুত গতিতে চালাতে থাকে। এক পর্যায়ে কলেজ ছাত্রী চিৎকার দিলে তাকে গাড়ী থেকে নামিয়ে দেয় হেলপার। কলেজ  ছাত্রী হবিগঞ্জ শহরের প্রাচীন বিদ্যাপাঠ বৃন্দাবন সরকারি কলজের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্রী। সে নবীগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব তিমিরপুর গ্রামের জনৈক ব্যাক্তির কন্যা। ওই দিন কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী পরিক্ষা শেষে বাড়িতে এসে গাড়ীর সুপারভাইজার ও হেলপারের  অসভ্যতার বর্ণনা তার  আত্মীয় স্বজনের কাছে ব্যাখা দেয়।

    পরদিন রবিবার সকালে ওই লাকি পরিবহনের গাড়ী (ঢাকা-মেট্রা-ব ১৫-৩৪৬৪) আটক করে স্থানীয় জনতা। উত্তেজিত জনতা গাড়ীর সুপারভাইজার  ও হেলপারকে উত্তম মাধ্যম দিলে ঘটনা স্বীকার করে। পরে খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানা পুলিশের এস আই শাহীন ও সম্রাটসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গাড়ীসহ সুপারভাইজার  ও হেলপারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। আটককৃত হেলপার নরসিংদি ইছাক আলী গ্রামের রফিজ মিয়ার পুত্র ইব্রাহিম খলিল (৩০), রতন সূত্রধর (৪৬) মুন্সীগঞ্জের হামরা গ্রামের মৃত মাখন সূত্রধরের ছেলে। নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ ডালিম আহমদ ঘটনাটি নিশ্চিত করেন।