কমলগঞ্জে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করেও কি পার পেয়ে যাবে ?

    0
    14

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৫অক্টোবর,কমলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  কমলগঞ্জের আদমপুরে প ম শ্রেণির ছাত্রী কে এলাকার চিহ্নিত বখাটে সাইফুর মিয়া গত শনিবার ( ২১ অক্টোবর ) শ্লীলতাহানীর  চেষ্টা করে বলে অভিযোগ উঠেছে । এলাকার চিহ্নিত বখাটে সাইফুল মিয়া(২৫) আদকানী গ্রামের আশিক মিয়ার পূত্র।

    নির্যাতিতা কিশোরী আদমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প ম শ্রেণির ছাত্রী, তার পিতা চা দোকানদার সোহাগ মিয়া বুধবার দুপুরে এ প্রতিবেদক কে জানান, তাঁর মেয়ে মমতা ( ছদ্মনাম ) ঘটনার দিন সন্ধ্যার পর নইনারপার বাজার থেকে সওদা নিয়ে অদূরবর্তী বাড়ি জালাল পুর ফেরার পথে স্থানীয় ঈদগাহ মাঠে বাউন্ডারির আড়ালে তাকে একা পেয়ে সাইফুর মিয়া জোর করে হাত ধরে টানাটানি করে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে, এ সময় মমতার চিৎকারে প্রতিবেশী তারেকুল ইসলাম ইয়াওর ও আলতা মিয়া এবং উসমান আলী মাদ্রাসা মসজিদের ইমাম ক্বারি মোঃ জাহিদ হাসান এগিয়ে এলে সাইফুর মমতাকে ছেড়ে দিয়ে তাদের পায়ে ধরে অনুরোধ করে ঘটনাটি কাউকে না জানাতে । কিন্তু পর দিন সাইফুর উল্টো ইয়াওর ও আলতা মিয়ার বিরুদ্ধে তাকে মারধর করে তার কাছ থেকে আশি হাজার টাকা ছিনতাইয়ের  অভিযোগ করে জনপ্রতিনিধি ও গণ্য মান্য ব্যক্তিদের কাছে।

    মঙ্গলবার রাতে নইনারপার বাজারের সোহাগ মিয়ার চায়ের দোকানে এ ব্যাপারে অনুষ্ঠিত সালিশ বৈঠকে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসে। আদমপুর ইউপি সদস্য বশির বক্স, আদমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এসএমসি সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সালিশ বৈঠকে উপস্থিত মতিউর রহমান ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ক্বারী জাহিদ হাসানের সাথে আলাপকালে জানা যায়, সালিশ বৈঠকে সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে সাইফুর কর্তৃক মেয়েটিকে শ্লীলতাহানীর চেষ্ঠার সত্যতা পাওয়া গেছে।

    সাইফুর মিয়া ইতিপূর্বে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় কয়েক মাস জেল খেটেছে,তার বিরুদ্ধে ইভটিজিং ও শ্লীলতাহানীর প্রচুর অভিযোগ রয়েছে। তবে আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য মোস্তফা কামাল জানান, সাইফুর  ইয়াওর ও আলতা মিয়ার বিরুদ্ধে শনিবার সন্ধ্যায় তার কাছ  থেকে টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ করেছে। এ বিষয়ে সাইফুলের সাথে  মুঠোফোনে (০১৭২৩৭৬০৩১১) যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা দায়ের করা হয়নি।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here