কমলগঞ্জে চাঁদাবাজি মামলায় আটক ১৩

    0
    7

    আমারসিলেট 24ডটকম,০৭অক্টোবর,শাব্বির এলাহী:মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার একটি চা বাগানের জমি জবর দখল করে চাঁদা দাবীর অভিযোগে পুলিশ অভিযান চালিয়ে  সোমবার ভোররাতে কমলগঞ্জ-মৌলভীবাজার সড়কের ছয়কুট এলাকা থেকে ১৩ জনকে চাঁদাবাজি মামলায় আটক করে বলে কমলগঞ্জ থানা সূত্র জানায়, রহিমপুর ইউনিয়নের হামিদিয়া চা বাগানের পক্ষে দায়ের করা চাঁদাবাজি মামলায় তাদের  কে আটক করা হয়। আটকৃতরা হলেন, মছদ্দর আলী (৫২), মছকন্দর আলী (৩৫), মছব্বির মিয়া (৫৫), লিটন মিয়া (২৩), আব্দুল মোমিন(৪৫), রোশন মিয়া(৩০), ফরিদ মিয়া(৪৮), আব্দুর রউফ(৩৬), মুকিত মিয়া(৩৩), আব্দুর রশীদ(৩০), মোহিত মিয়া(৩৬), হান্নান মিয়া(২২) ও লেবু মিয়া৪৫)। আটক সকলের বাড়ি রহিমপুর ইউনিয়নের বড়চেগ ও ছয়কুট গ্রাম এলাকায়।

    কমলগঞ্জ থানা ও হামিদিয়া চা বাগান সুত্রে ঘটনার বিবরনে জানা যায়, রহিমপুর ইউনিয়নের বড়চেগ ও ছয়কুট গ্রাম এলাকার নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও হত্যা মামলার আসামী মছদ্দর আলীর নেতৃত্বে একদল লোক দীর্ঘদিন ধরে হামিদিয়া চা বাগানের পতিত বেশ কিছু জমি দখল করে নিয়েছিল। চা বাগানের জমি দখল করে সেখানে প্রাথমিকভাবে ৩টি ঘর নির্মাণ করে চা বাগান কর্তপক্ষের কাছে আর্থিক সুবিধা দাবী করেছিল। হামিদিয়া চা বাগান কর্তৃপক্ষ নিজেদের জমি উদ্ধার করে সেখানে নতুন চা গাছ রোপনের স্বার্থে বাধ্য হয়ে দখলদার চক্রকে কিছু আর্থিক সুবিধা দিয়েছিলেন। হামিদিয়া চা বাগান কর্তৃপক্ষ এই জমির উপর গত ২৫ জুলাই চা শ্রমিকদের নিয়ে প্লান্টেশন করতে গেলে উল্টো হামলার শিকার হয়ে চা বাগানের দুইজন শ্রমিক গুরুতরভাবে আহত হয়েছিলেন। এ ঘটনায় তাৎক্ষনিক কমলগঞ্জ থানার পুলিশি হস্তক্ষেপে সাময়িকভাবে উত্তেজনার নিরসন হলেও দখলদাররা দখলকৃত জমিতে ১৬টি ঘর নির্মাণ করে বসবাস শুরু করে। এক পর্যায়ে দখলদাররা নগদ ২ লাখ টাকা চাঁদা পেলে জমি ছেড়ে দেবে বলে জানায়। এ ঘটনায় গত ১ আগষ্ট হামিদিয়া চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক রাহেল আহমদ চৌধুরী বাদী হয়ে মছদ্দর আলীকে প্রধান আসামীসহ ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ আরো ২০-২৫ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামী করে কমলগঞ্জ থানায় একটি চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেন। থানায় চা বাগানের পক্ষে মামলা দায়ের করা হলে দখলদাররা নানাভাবে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করে। আসামীরা একটি সন্ত্রাসী ঘটনা পরিচালনার জন্য একটি বড় মাইক্রোবাসে করে যাবার প্রস্তুতির খবর পেয়ে সোমবার ভোর রাতে কমলগঞ্জ-মৌলভীবাজার সড়কের ছয়কুট এলাকা থেকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কমলগঞ্জ থানার এসআই চম্পক দামের নেতৃত্বে পুলিশ ১৩ চাঁদাবাজকে আটক করে।কমলগঞ্জ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শকচম্পক ধাম জানান, ১নং আসামী মছদ্দর আলী নিজের বাবা আব্দুল আজিজকে হত্যা করার মামলাসহ একাধিক মামলার আসামী। ধৃত ১৩ চাঁদাবাজকে সোমবার দুপুরে মৌলভীবাজার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

    কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধৃত ১৩ আসামীর বিরুদ্ধে স্থানীয়ভাবে অনেক অভিযোগও রয়েছে। ভয়ে তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে সাহস পায় না। হামিদিয়া চা বাগানের সহ-ব্যবস্থাপক রাহেল আহমেদ চৌধুরী বাদী হয়ে এদের নাম উল্লেখ করে কমলগঞ্জ থানায় চাঁদাবাজি ও ভাংচুরের একটি মামলা দায়ের করলে আসামীরা দীর্ঘদিন পলাতক ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সোমবার ভোররাতে তাদেরকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আলাপকালে হামিদিয়া টি কোম্পানীর জেনারেল ম্যানেজার সিরাজুল ইসলাম জানান, ধৃত আসামীরা হামিদিয়া চা বাগানে দীর্ঘদিন যাবত চাঁদা দাবী ও জায়গা দখল করে আসছিল। শ্রমিকরা প্রতিরোধ গড়ে তুললে ইতিমধ্যে ৪ জন শ্রমিক আহত হয়েছিল।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here