কমলগঞ্জে অবৈধভাবে সিলিকা বালু উত্তোলন মহোৎসবে সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা

0
70
কমলগঞ্জে অবৈধভাবে সিলিকা বালু উত্তোলন মহোৎসবে সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা
কমলগঞ্জে অবৈধভাবে সিলিকা বালু উত্তোলন মহোৎসবে সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা

শাব্বির এলাহী, কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধিঃ  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে বিভিন্ন পাহাড়ি ছড়া থেকে অবৈধ ও অপরিকল্পিতভাবে সিলিকা বালু উত্তোলনে মহোৎসবের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব বালুর চাহিদা বেশি থাকায় সরকারি কোন আইন না মেনে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল এর একটি সিন্ডিকেট উপজেলার বিভিন্ন ছড়া থেকে বালু উত্তোলন করছে। এতে পরিবেশ, ফসলি জমি এবং ঘরবাড়ি হুমকিতে পড়েছে।

এলাকার ভুক্তভোগীরা এ ব্যাপারে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, মাঝে মধ্যে প্রশাসনের লোকেরা লোক দেখানো অভিযান করলেও এর স্থায়ী কোন সমাধান হচ্ছেনা। প্রশাসনের লোকেরা আসার আগেই বালু উত্তোলন কারী চক্র পালিয়ে যায়। অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারণে একদিকে  সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে অন্যদিকে পরিবেশর মারাত্বক ক্ষতি হচ্ছে।

এভাবেই বালু ভর্তি ট্রাক যাচ্ছে। ছবি প্রতিনিধি

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার সুনছড়া, দেওছড়াসহ কয়েকটি ছড়ার একাধিক স্থান থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে কয়েকটি স্তুপ করে রাখা হয়েছে।

এসব বালু ট্রাক যোগে অন্যস্থানে পরিবহন ও বিক্রি করা হচ্ছে। ছড়া থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে ছড়ার দুপাশের প্রশস্ততা বাড়ছে। ফলে পরিবেশ-প্রতিবেশ ছাড়াও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ হচ্ছে।

এছাড়া উপজেলার কামারছড়া, লাউয়াছড়া, লঙ্গুছড়া, ধামালিছড়াসহ অসংখ্য স্থান থেকে অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলিত হচ্ছে।

জানা যায়, স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ছড়া থেকে সরকারি ইজারা ছাড়া অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছে।

এভাবেই বিভিন্ন রাস্তার পাশে দু’তিন গাড়ি করে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কমলগঞ্জের আলীনগর ইউনিয়নের কয়েকজন বাসিন্দা অভিযোগ করে বলেন, সুনছড়া থেকে ইজারা ছাড়া অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। প্রতিদিন এখান থেকে ২০/২৫ হাজার টাকার সিলিকা বালু উত্তোলন করে বিক্রি করা হয়। এ বালুর বাজারমূল্য অনেক বেশি। অবৈধ বালু উত্তোলনের কারণে পরিবেশ ও রাস্তার অনেক ক্ষতি হচ্ছে। শমশেরনগর ইউনিয়নের বাসিন্দা সিপন মিয়া বলেন, দেওছড়া থেকে লুকিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। প্রতিদিন টাক যোগে লুকিয়ে বালু পরিবহন করা হচ্ছে। বালু উত্তোলন কারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনসহ স্থানীয়রাও নিরব ভূমিকা পালন করছে।

এ বিষয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সিফাত উদ্দিন বলেন, “কমলগঞ্জের যেসব ছড়া থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে,এসব স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হবে।  মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ মেহেদী হাসান বলেন, অবৈধ বালু উত্তোলন কারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here