ঈ’দে মিলাদুন্নবীতে (দ.) জুলুশ পূর্ব সমাবেশে চুনারুঘাটের বক্তাগণ

0
60
ঈদে মিলাদুন্নবীতে (দ.) জুলুশ পূর্ব সমাবেশে চুনারুঘাটের বক্তাগণ

পবিত্র মিলাদুন্নবী (দ.) তথা কোরআন বিদ্ধেষীদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান

চুনারুঘাট থেকেঃ আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত বাংলাদেশ চুনারুঘাট উপজেলা শাখার উদ্যোগে পবিত্র জশনে জুলুশে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) অনুষ্ঠিত হয়। প্রতি বছরের ন্যায় এবারো ১২ই রবিউল আওয়াল বুধবার ২০ অক্টোবর সকাল থেকে হবিগঞ্জসদরসহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় পবিত্র জশনে জুলুশে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) যথাযোগ্য সম্মানের সাথে পালিত হয়েছে।

এদিকে চুনারুঘাট উপজেলা পরিষদস্থ বীর মুক্তিযোদ্ধা এনামূল হক মোস্তফা শহীদ অডিটরিয়াম মাঠে উপজেলার ১০ টি ইউনিয়ন ও পৌর সভার বিভিন্ন স্থান থেকে হাজারো রাসুল প্রেমিক সুন্নী  জনতার উপস্থিতিতে পৌর শহর জনসমুদ্রে রুপ নেয়।   জুলুস পুর্ব  সমাবেশে বক্তাগণ বলেন, মহানবী হযরত মোহাম্মদ (দ.) এর মিলাদুন্নবী বিরোধী  তথা  পবিত্র কুরআন   বিদ্ধেষী নাস্তিক্যবাদীদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য সুন্নী জনতার প্রতি জোর দাবী জানান। বক্তাগণ আরো বলেন, মহানবী (দ.) এর পৃথিবীতে শুভাগমন না হলে আজ পৃথিবী অন্ধকারে নিমোজ্জিত থাকতো। মহানবীর আগমনের কারণেই আমাদের সৃষ্টি তথা আলোর পথ পেয়েছি। মানব জীবনে মহানবীর (দ.) এর আদর্শ অনুস্মরণই মানব জাতির মুক্তির একমাত্র পথ। আজ এক শ্রেণির নেতা তথা মুসলমান নামধারী ব্যক্তিরা ইসলাম তথা মুসলিম জাতিকে নিয়ে বিদ্ধেষ পোষণ করছে এবং সম্প্রতিকালে বাংলাদেশ সরকারের এক প্রতিমন্ত্রী ইসলাম নিয়ে  কুটক্তিপূর্ণ বক্তব্য রাখায় তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। এদেশে একমাত্র সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ম্ক্তু সুফীবাদী সুন্নী জনতাই হক্কানী আলেম হিসাবে পরিচিত পেয়েছে। ইসলামের   বিরুদ্ধে কথা বলে  কেহ ক্ষমতায় থাকতে পারেনি।  বক্তাগণ  ইসলামের বিরোধিতা কারী  প্রতিমন্ত্রীকে  মন্ত্রণালয় থেকে প্রত্যাহার করে বিচারের আওতায় আনার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট জোর দাবি জানান এবং শহীদ আবুল হোসেন আকল মিয়া হত্যার বিচার দাবী করেন। 

উপজেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আতের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল জাহির মেম্বারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম তরফদার, শফিকুল ইসলাম তালুকদার দুলাল ও কাউছার আহমদ রুবেলের  যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মিলাদুন্নবী জুলুশ পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল কাদির লস্কর, এডভোকেট আকবর হোসেন জিতু,পৌর মেয়ের মোঃ সাইফুল আলম রুবেল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব লুৎফুর রহমান মহালদার,  আলহাজ্ব মাওলানা আলী মোহাম্মদ চৌধুরী, আলহাজ্ব মাওলানা ছোলাইমান খান রাব্বানী,মাওলানা রফিকুল ইসলাম জাফরী,  সাবেক পৌর মেয়র নাজিম উদ্দিন সামছু,   উপাধক্ষ শেখ মোশাহিদ আলী, এডভোকেট নাজমুল ইসলাম বকুল, কাজী মাওলানা আবুল খায়ের শানু, মাওলানা ফজলুল হক, মুফতি মুসলিম খান, উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সভাপতি মাওলানা মোঃ ইয়াকুত মিয়া, সাংবাদিক এস এম সুলতান খান,  মাওলানা আজিজুল হক সোহাগ,মাওলানা মোশাহিদুল ইসলাম, পৌর আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আতের সভাপতি শেখ জামাল আহমদ, উপজেলা যুবসেনার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ ইকবাল, মাসুক মিয়া মাস্টার, মাওলানা আব্দুল মুকিত শাহিন, কুতুব উদ্দিন আখঞ্জী, মোঃ মোক্তার হোসেন, ছাত্রনেতা মাওলানা মামুনুর রশীদ,, মাওলানা নজির আহমদ, মাওলানা মিজানুর রহমান,  মাওলানা আবুল কাশেম, উপজেলা ছাত্রসেনার সভাপতি আব্দুল্লাহ্ আল মামুন, সহ-সভাপতি মোঃ জাবেদ মিয়া, পৌর সভাপতি মোহাম্মদ আবু তাহির ,  প্রমুখ। আলোচনা শেষে এক বিশাল জশনে জুলুশ বের হয়।

জুলুশটি পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদণি শেষে পুনরায় সভাস্থলে এসে মিলাদ শরীফ মোনাজাতে দেশ ও বিশ্বের শান্তি কামনা করেন। বিশ্বের নির্যাতিত মুসলিমদেরসহ সমগ্র দেশ জাতির ইহকালিন ও পরকালীন শান্তি কামনা ও মহামারি করোনাভাইরাস মুক্তির মোনাজাতের মাধ্যমে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী(সাঃ)এর আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়।
 পরিচালনা করেন   মাওলানা  মোঃ আব্দুল্লাহ। 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here