ইউক্রেনে দেয়া অস্ত্রের বিশাল চালান ধ্বংস ও গ্যাস লাইন বন্ধের দাবী রাশিয়ার

0
79
ইউক্রেনে দেয়া অস্ত্রের বিশাল চালান ধ্বংস ও গ্যাস লাইন বন্ধের দাবী রাশিয়ার
ছবি ও সংবাদ পার্স টু ডে থেকে নেওয়া

রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে ব্যবহারের জন্য ইউক্রেনকে পশ্চিমা দেশগুলোর দেয়া অস্ত্রের বিশাল চালান ধ্বংস করেছে রুশ সেনারা। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আজ (বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২) এ তথ্য জানিয়েছে। মন্ত্রণালয় বলেছে, ইউক্রেনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে এসব অস্ত্র ধ্বংস করা হয়।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, যাপরোজিয়া শহরের অ্যালুমিনিয়াম শিল্প কারখানায় অস্ত্রের গুদাম প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। সেখানে ক্যালিবার ক্ষেপণাস্ত্রের সাহায্যে হামলা চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম ধ্বংস করা হয়। কৃষ্ণসাগরে অবস্থানরত নৌবাহিনীর একটি যুদ্ধজাহাজ থেকে ওই ক্যালিবার ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীকে আমেরিকা ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ এই বিরাট অস্ত্রের চালান দিয়েছিল।

এদিকে, গতরাতে রাশিয়ার যুদ্ধবিমানগুলো ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর ৫৯টি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে। এছাড়া, ইউক্রেনের সেনাদের ওপর রুশ সেনারা ৫৭৩টি কামানের গোলা ও মর্টার শেল দিয়ে হামলা চালিয়েছে। পাশাপাশি ১৮টি ড্রোন ভূপাতিত করা হয়েছে। এর আগে সোমবার মস্কো জানিয়েছিল, ইউক্রেনের পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত ছয়টি রেলওয়ে কেন্দ্র ধ্বংস করা হয়েছে। এসব স্টেশন পশ্চিমা অস্ত্র বহনের কাজে ব্যবহৃত হচ্ছিল।


অপরদিকে পোল্যান্ড ও বুলগেরিয়ায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে রাশিয়া। বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে রুশ মুদ্রা রুবলে মূল্য পরিশোধ না করায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে মস্কো।

ছবি পার্স টু ডে থেকে

রাশিয়ার পক্ষ থেকে সম্প্রতি ঘোষণা দেওয়া হয়, অবন্ধুসুলভ দেশগুলোকে জ্বালানি নিতে হলে অবশ্যই রাশিয়ান মুদ্রা রুবলে অর্থ পরিশোধ করতে হবে। তা না হলে তাদের গ্যাস সরবরাহ করা হবে না। পোল্যান্ড ও বুলগেরিয়া ওই শর্ত মানতে অসম্মতি জানায়। এরপর পোল্যান্ড ও বুলগেরিয়াকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করার বিষয়টি জানিয়ে দেয় মস্কো।

বুলগেরিয়ার কোম্পানি বুলগারগাজ ও পোল্যান্ডের কোম্পানি পিজিএনআইজি জানিয়েছে, রুশ কোম্পানি গ্যাজপ্রম তাদেরকে গ্যাস সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে।

গতকাল গ্যাজপ্রম পোল্যান্ড ও বুলগেরিয়ার আমদানিকারক কোম্পানি দু’টিকে এক নোটিশের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়, রুবলে মূল্য পরিশোধের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ২৭ এপ্রিল থেকে তাদের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখা হবে।

ইউরোপের বার্ষিক জ্বালানির এক-তৃতীয়াংশ পূরণ করে রাশিয়ার গ্যাস। ইউক্রেনে গত মাসে শুরু হওয়া আক্রমণের প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়ার উপর যেসব অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে গ্যাসের দাম রুবলে পরিশোধ করতে বলে তার জবাব দিয়েছে মস্কো।

ইউক্রেনকে নিরস্ত্র ও নব্যনাৎসীমুক্ত করতে দেশটিতে বিশেষ সামরিক অভিযান চালানো হচ্ছে বলে দাবি করেছে রাশিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here