আহমদ শফীর বিভ্রান্তিমূলক লেখনীর মুখোশ উন্মোচন করলে বাহুবলে আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গীর ওপর হেফাজতের হামলা

    0
    4

    হবিগঞ্জ, ২৭ এপ্রিল : আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গীকে হামলার খবরে শহরে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত ঐক্য পরিষদ বিােভ মিছিল করেছে।

    বাহুবলে হেফাজতে ইসলাম ও আহমদ শফীর বিভ্রান্তিমূলক লেখনীর মুখোশ উন্মোচন করলে হবিগঞ্জ জেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত ঐক্য পরিষদের আহবায়ক আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গীকে অবরুদ্ধ করে রাখে সন্ত্রাসীরা। হেফাজতের অভিযোগ, তিনি গতকাল মাগরিবের নামাজের পর স্থানীয় ডুবাঐ বাজারে একটি প্রচার সভায় হেফাজতে ইসলাম ও আল্লামা আহমদ শফী সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করেছেন। এ ঘটনায় হেফাজতের কর্মীরা তর্কে না পেরে প্তি হয়ে হামলা চালায় ও তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে। এ সময় তিনি সহিংসতা এড়াতে সহকর্মী আলেমদের নিয়ে একটি দোকানে আশ্রয় নেন। হেফাজতের কর্মীরা ওই দোকানটি কয়েক ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে এবং তার ব্যবহৃত মাইক্রোবাস ভাংচুর করে। পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। পুলিশী নিরাপত্তায় তিনি এলাকা ত্যাগ করেন। এদিকে আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গীকে আটকের খবরে উত্তেজনায় ফেটে পড়েন হবিগঞ্জ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত ঐক্য পরিষদ নেতৃবৃন্দ। গতকাল রাত প্রায় ১১টায় তারা হবিগঞ্জ শহরে বিােভ মিছিল বের করেন। এ সময় তারা নানা শ্লোগান দেন এবং আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গীকে অবরুদ্ধ করার ঘটনার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

    প্রত্যদর্শী সূত্র জানায়, হবিগঞ্জে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের সমাবেশ সফল করার ল্েয প্রচারাভিযানের অংশ হিসেবে গতকাল মাগরিবের নামাজের পর বাহুবল উপজেলার ডুবাঐ বাজারে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গী বক্তৃতা করেন। তিনি তার বক্তৃতায় হেফাজতে ইসলাম ও আহমদ শফির বিভ্রান্তিমূলক লেখনীর মুখোশ উন্মোচন করেন। এতে আহমদ শফির অনুসারী ও হেফাজতের কর্মীরা হামলা করলে তিনি সহযোগীদের নিয়ে ওই বাজারের ঈমান আলীর কাপড়ের দোকানে আশ্রয় নেন। হেফাজতের সন্ত্রাসীরা এ সময় আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গীকে বহনকারী মাইক্রোবাস (ঢাকা-মেট্টো চ ১৩-২০০৬) ভাংচুর করে এবং ওই দোকানের চারপাশ ঘিরে রাখে। এ সময় হেফাজতের কর্মীরা উস্কানীমূলক শ্লোগান দেয়। খবর পেয়ে রাত প্রায় ৯টায় বাহুবল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। বাহুবল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ হুমায়ুন কবির ও বাহুবল মডেল থানার ওসি জালাল উদ্দিন ভূঁইয়া অবরুদ্ধ মাওলানা নূর উদ্দিন জঙ্গী ও তার সহকর্মীদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। রাত সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ প্রহরায় আল্লামা নূর উদ্দিন জঙ্গী ও তার সহকর্মীরা বাহুবল ত্যাগ করেন। রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন হবিগঞ্জ সার্কেলের এএসপি মুজাম্মেল হোসেন।

    বাহুবল মডেল থানার ওসি জালাল উদ্দিন ভূইয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

    ডুবাঐ বাজার সুন্নী আলেমদের উপর হামলার নিন্দা কঠোরশাস্তি দাবি

    হবিগঞ্জে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত সংরক্ষণ পরিষদের জরুরি সভা

    হবিগঞ্জ, ২৭ এপ্রিল : আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত সংরক্ষণ পরিষদ হবিগঞ্জ জেলা কমিটির এক জরুরি সভা কমিটির অস্থায়ী কার্যালয়ে গতকাল বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সাভারে ভবন ধ্বসের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে নিহতদের মাগফেরাত ও আহতদের দ্রুত আরোগ্যের জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়। সভায় চট্টগ্রামে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের ১২ দফা দাবির প্রতি একাগ্রতা ঘোষণা করে বলা হয়- পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী হবিগঞ্জে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আজকের সমাবেশকে বানচাল করার জন্য নানামুখী ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছিল।
    সভায় বাহুবলের ডুবাঐ বাজার সুন্নী আলেমদের উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও হামলাকারীদের কঠোর শাস্তি দাবি করা হয়। সভায় আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের কেন্দ্রীয় নেতাদের পক্ষ থেকে আগামীতে ১২ দফা দাবির বাস্তবায়নে যে কোন ঘোষণায় হবিগঞ্জের আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত সংরক্ষণ পরিষদের ৫ হাজার নেতাকর্মী তাদের পক্ষে থাকবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন কমিটির সদস্য সচিব মাওলানা মনিরুজ্জামান মোক্তার, মাওলানা বিলাল, মাওলানা কাউছার আহমেদ, মাওলানা ইউসুফ, মাওলানা হাবিব, মাওলানা সুলতান, আহমেদ, মাওলানা ছুরুক আলী, মাওলানা আব্দুল জলিল আনছারী প্রমূখ।

     

     

     

     

     

     

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here