আমরা সকল সাংবাদিককে মেনেজ করেই ইট ভাটা চালাচ্ছি!

0
18

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল আরএসবি ইট ভাটায় কয়লার পরিবর্তে দেদারসে গাছ কাঠ পোড়াচ্ছে-প্রতিনিয়ত পরিবেশ দূষিত-দেখার কেউ নেই 

গীতি গমন চন্দ্র রায় গীতি,স্টাফ রিপোর্টারঃ  ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলের শিং পাড়া গ্রামে রওশন আলী নামে এক প্রভাবশালী ব্যাক্তি অবৈধভাবে ফসলী জমির উপর RSB ইট ভাটা নির্মান করে বিনা দ্বিধায় দিনের পর দিন কয়লার পরিবর্তে পোড়াচ্ছে গাছ কাঠ ও লাখরী বিষয়টি দেখার কেউ নেই।
এবিষয়ে ভাটা মালিক রওশন আলীর সাথে কথা হলে তিনি জানান আমরা প্রশাসন ও সকল সাংবাদিক মেনেজ করেই গাছ কাঠ ও লাখরী পুড়িয়ে ইট তৈরি করছি এতে কার কি আসে আসুক।ভাটা মালিক রওশন আর ও বলেন আমরা রানীশংকৈল ইট ভাটা মালিকের সভাপতি  বিপ্লব কে প্রশাসন ও সাংবাদিক কে মেনেজ করার জন্য মোটা অংকের টাকা দিয়েছি।ভাটা মালিক সভাপতি বিপ্লবের সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমরা সকল সাংবাদিক কে মেনেজ করেই ইট ভাটা চালাচ্ছি।
আরএসবি ইট ভাটায় এখন কয়লার পরিবর্তে পুড়ছে  কাট খড়ি এতে করে বীষাক্ত ধোঁয়ায় পরিবেশ ও জীববৈচিএ্য হুমকির মুখে। ভাটা ইস্তাপন  আইয় ২০১৩ এর ৫৯ আইনকে তোয়াক্কা না করে কতিপয় প্রভাবশালি বেক্তি ইট ভাটার মালিক রওশন আলী ইটের নাম আরএসবি তার ইট ভাটার বিষাক্ত ও কালো ধোঁয়ায় মারাক্ত ভাবে পরিবেশ নষ্ট হোয়ার পাশাপাশি জীববৈচিএ্য হুমকির মুখে পড়েছে ইট ভাটা গুলো কৃষি জমিতে অবস্তিত এবং ভাটাগুলোর চারপাশে পাশে ফসলি জমি ও গাছপালা রয়েছে। জ্বালানি হিসেবে ব্যাপকভাবে কাট পড়ানোর কারণে মোরুভুমী উজাড় হচ্ছে এবং ইট ভাটা গুলোর আসেপাশে ফসলি জমির ব্যাপক খতি হচ্ছে।ফলে দিন দিন
কৃষি জমি ও জন জীবন হুমকির মুখে লিপ্ত হচ্ছে। এবিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের জরুরি পদক্ষেপের জন্য ঐ এলাকার কৃষক ও সুশীল সমাজের ব্যাক্তিগন দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন।জরুরি পদক্ষেপ না নিলে এই এলাকায় ভাটার কালো ধোঁয়ায় পরিবেশ ও ফসলী জমি,গাছ পালা চরম হুমকির মুখে পড়বে।