আনসার নিয়োগ দিতে হবে,শ্রীমঙ্গলে সচিব আবু বকর ছিদ্দীক

0
21

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সরকারী প্রতিষ্ঠানে গুরুত্তপুর্ন সম্পদ রক্ষায় আনসার ব্যাতিত কাউকে সিকিউরিটি নেওয়া যাবেনা বলে সচিব আবু বকর ছিদ্দীক মৌখিক নির্দেশ ও লিখিত অর্ডার করেছেন শ্রীমঙ্গলে স্থিত মেঘনা পেট্রলিয়ামের কর্মকর্তা শহিদুলকে।জানা যায় মেঘনায় ৬ জন বেসরকারি গার্ড ও একজন নির্ধারিত আনসার কাজ করে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের চেয়ারম্যান (সচিব) মো. আবু বকর ছিদ্দীক নির্ধারিত তারিখের পুর্বের দিনে ১০ মার্চ বিকাল সাড়ে ৪ টায় এক ঝটিকা সফরে মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলায় অবস্থিত মেঘনা পেট্রোলিয়াম,পদ্মা পেট্রোলিয়াম ও যমুনা পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন লিঃ (কে,পি,আই)স্থাপনা পরিদর্শন করেন এসময় তার সাথে সফরসঙ্গীদের মধ্যে ব্যক্তিগত গানম্যানসহ  অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সরেজমিনে শ্রীমঙ্গলে অবস্থিত পেট্রোলিয়াম কোম্পানি মেঘনা পদ্মা ও যমুনার কম্পাউন্ড ঘুরে দেখেন সচিব। এসময় তিনি উপস্থিত কর্মরত কর্মচারীদের স্টেশনের ব্যাপারে খোঁজখবর নেন তিনি জিজ্ঞাসা করেন কতদিনের পেট্রোলিয়াম জমা রয়েছেন প্রশ্নের সঠিক জবাব দ্রুত না দিতে পারলেও এক পর্যায়ে সপ্তাহ পর্যন্ত চলবে, এমন রিজার্ভ রয়েছে বলে জানান।

অপরদিকে পেট্রোলিয়াম এরিয়া ঘুরে বিভিন্ন অসংলগ্নতা দেখতে পান তিনি।এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ যেটি বিশেষ করে কেপিআই স্টেশন পাহারার দায়িত্বে থাকা সিকিউরিটি গার্ড নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন এবং যারা কাজ করছেন তাদের ব্যাপারে খোঁজখবর নেন। এ সময় তিনি জানতে পারেন যে এখানে সরকারি বিধি মোতাবেক আনসার নিয়োগের কথা থাকলেও কোন অদৃশ্য কারণে আনসার নিয়োগ হচ্ছে না। একটি চক্রের সাহায্যে প্রাইভেট সেক্টরের লোক দিয়ে সরকারি মালামাল রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করা হচ্ছে বিষয়টি তিনি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নেয় এবং শ্রীমঙ্গল মেঘনার ডিএস কে দ্রুত বেসরকারি পাহারাদার বাদ দিয়ে সরকারি প্রতিষ্ঠানে সরকারী বিধি মোতাবেক আনসার নিয়োগ এর জন্য তাগিদ দেন।

এসময় তিনি মেঘনার ডি এস কে প্রশ্ন করেন এখানে আপনি কতদিন ধরে রয়েছেন তিনি বলেন প্রায় চার বছর একথা শুনে সচিব চমকে উঠেন চার বছর ধরে একই স্থানে কিভাবে আছেন বললে তিনি কোনো উত্তর দেননি।

এ সময় এই প্রতিনিধির সাথে মেঘনা পেট্রোলিয়ামের বিভিন্ন অভিযোগের ব্যাপারে কথা হলে তিনি বলেন,বেসরকারি লোক দিয়ে সরকারী স্থাপনা ও সেন্সেটিভ মালামাল কিভাবে রক্ষা হবে ? যদি কোন দুর্ঘটনা ঘটে তাদের কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবেনা এ জন্য আমি বলে এসেছি এবং লিখেও দিয়েছি দ্রুত স্থানীয় প্রশাসনের সাথে শেয়ার করে আনসার নিয়োগের ব্যবস্থা করা। এ সময় তিনি প্রটোকলে থাকা শ্রীমঙ্গল থানার এস আই সুব্রতকে বলেন আপনারা খোঁজ রাখবেন এবং ওসি সাহেবের সাথে কথা বলবেন যাতে সরকারী কোন মালামাল বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের লোক দিয়ে পাহারা না দেওয়া হয়,আমাদের প্রচুর আনসার সদস্য রয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে কোন এক অদৃশ্য চক্রের বদৌলতে তিনি দীর্ঘদিন ধরে এ প্রতিষ্ঠানে একটি সিন্ডিকেটকে ধরে কাজ করে যাচ্ছেন এতে বিভিন্ন দুর্ঘটনায় সরকারি সম্পদের যেমন ক্ষতি হয়েছে তেমনি প্রতিনিয়ত বিভিন্ন অভিযোগ শোনা যাচ্ছে। এ বিষয়ে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুছ ছালেক বলেন সরকারী প্রতিষ্ঠানে সিকিউরিটি আনসারসদস্যরাই থাকবে,এখানকার বিষয়টি আমার জানা ছিলনা খোঁজ নিয়ে বিধি মোতাবেক সহযোগিতা করবো।