আজ চুনারুঘাটের আহম্মদাবাদ ইউনিয়নে বিএনপির কাউন্সিল

    0
    81

    কাউন্সিলকে ঘিরে আহম্মদাবাদ ইউনিয়ন বিএনপির নেতাকর্মীরা চাঙ্গা

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,১৫অক্টোবর,চুনারুঘাট প্রতিনিধিঃ দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর পর  আজ রবিবার (১৫ আক্টোবর) আহম্মদাবাদ ইউনিয়নে  অনুষ্ঠিত হতে  যাচ্ছে ইউনিয়ন বিএনপির কাউন্সিল। দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এই কাউন্সিলে জেলা ও উপজেলা বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বে কারা আসছেন, তা নিয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীদের চলছে জল্পনা-কল্পনা। সেইসঙ্গে দলের কাউন্সিল নিয়ে গোটা  ইউনিয়ন ও উপজেলা তথা জেলার নেতাকর্মীদের মধ্যে তৈরি হয়েছে উৎসাহ, উদ্দীপনা, প্রাণচাঞ্চল্য। মামলা, গ্রেফতারি পরোয়ানা প্রভৃতি কারণে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে দলীয় কার্যক্রমে অংশ নেওয়ার উৎসাহ কমে গেলেও কাউন্সিলকে ঘিরে চাঙ্গা হয়ে উঠেছেন তারা।

    দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের এই সম্মেলনে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকসহ মোট ৩ টি পদে নির্বাচন হবে। এসব পদে প্রতিযোগিতা করছেন ৯ প্রার্থী। এসব প্রার্থী ও সমর্থকরা নির্বাচনে জয় লাভের জন্য ঘুরে বেরিয়েছেন দলীয় নেতা কর্মি ও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নে দলের এই কাউন্সিল উপলক্ষে গঠিত হয়েছে ৫ সদস্যের নির্বাচন কমিশন। কমিশন জানিয়েছে, আজ রবিবার আহম্মদাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ হলরুমে অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচনটি। এতে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন (তালা মার্কার) উপজেলা বিএনপির সদস্য ও ইউনিয়ন বিএনপির বর্তমান আহবায়ক সদস্য ও ইউপি সদস্য মো: দুলাল ভূইঁয়া, (চেয়ার মার্কায়) বর্তমান আহবায়ক ও সাবেক ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি হাজ্বী আজগর আলী মাষ্ঠার ও (ছাতা মার্কার) ওয়ার্ড সহ- সভাপতি মো: ছালেহ উদ্দিন বাবরু।

    নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজ্বী আ: রহমান আজাদ এর বড় ছেলে (মই মার্কার) মো: কামরুল হাসান (শামীম আজাদ), (রিক্সা মার্কার) দলের ইউনিয়নের যুগ্ম আহবায়ক মো: ফারুক হোসাইন, (মোরগ মার্কার) ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক মো: ফজলুর রহমান খালেদ ও (মাছ মার্কার) মো: জিতু মিয়া। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন ২ জন। তারা হলেন (ফুটবল মার্কার) বর্তমান ইউনিয়ন আহবায়ক কমিটির সদস্য মো: জাহির মিয়া ও (দেয়াল ঘড়ি মার্কার ) ৫নং ওয়ার্ড বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সাগর খাঁন হিরন। জানা গেছে, নির্বাচনে কোন প্রার্থীর নেতৃত্বে অন্য প্রার্থীরা প্যানেল হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না। উপজেলা বিএনপির নেতা কর্মিরা এ প্রতিনিধিকে  বলেন, ‘এখানে সবাই নিজ নিজ পদের জন্য এককভাবে কাজ করছে। প্যানেল বলে কিছু নেই।

    বিএনপির এই কাউন্সিলে নির্বাচন কমিশনের সদস্যগন বলেন, ‘২০০৮ সালে কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এরপর আর আহম্মদাবাদ ইউনিয়নে কোন কাউন্সিল হয়নি। তবে ২০১৫ সালে পূর্ণ গঠন হয়েছে। প্রতিটি কমিটির মেয়াদ ২ বছর। অতিথি হিসেবে কাউন্সিলে থাকবেন দলের জেলা সভাপতি সৈয়দ মোঃ ফয়সলসহ উপজেলা নেতৃবৃন্দ, এ ইউনিয়নের মোট ৩৬৯ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন এই নির্বাচনে।’ দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তারা কেন্দ্রের নির্দেশ মোতাবেত এ দলকে শক্তিশালী ও চাঙ্গা করার জন্য এ সম্মেলন ও কাউন্সিল করছেন। এখন কাউন্সিলকে ঘিরে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে আবার উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। নেতাকর্মীরা সংগঠিত হচ্ছেন।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here