আজ গাইবান্ধায় আসছেন প্রধানমন্ত্রী

    0
    4

    আমারসিলেট24ডটকম,২৫জানুয়ারীঃবিরোধী দলীয় জোটের সাম্প্রতিক সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে এবং সাংগঠনিক সফরের অংশ হিসেবে আজ শনিবার গাইবান্ধায় আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রীকে বরণে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও স্থানীয় প্রশাসন। জেলার সর্বত্র চলছে প্রধানমন্ত্রীকে বরণ করে নেয়ার আয়োজন। জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা অপেক্ষা রয়েছেন তার আগমনের। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে জেলাব্যাপী বিরাজ করছে সাজ সাজ রব। প্রধানমন্ত্রীর সফর উপলক্ষে গোটা জেলায় নিরাপত্তা জোরদার কারা হয়েছে। জেলা-উপজেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল করছে আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ শামস-উল-আলম হীরু বলেন, জামায়াত-বিএনপির সাম্প্রতিক সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে ও সাংগঠনিক সফরের অংশ হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনা গাইবান্ধায় আসছেন। আজ বেলা সাড়ে ১২টার দিকে জেলার তুলশীঘাট হ্যালিপ্যাডে অবতরণ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী ও ২০০৫ সালে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে গাইবান্ধায় এসেছিলেন তিনি। গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক এহছানে এলাহী জানান,  প্রধানমন্ত্রী গাইবান্ধা সার্কিট হাউসে ১০ম সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে সহিংসতায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদের সঙ্গে মতবিনিময় ও চেক বিতরণ করবেন। এরপর গাইবান্ধা শাহ্ আব্দুল হামিদ স্টেডিয়ামে সমাপ্ত ৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন এবং নতুন ১০টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পাশাপাশি জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় বক্তব্য রাখবেন। গাইবান্ধা সদর আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য মাহাবুব আরা গিনি বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাইবান্ধা সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে জানান, বঙ্গবন্ধুর কন্যার এই সফর মূলত- জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি প্রতিহত, তাদের হামলায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানো ও গাইবান্ধায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিকাশের সফর হিসেবে জানা গেছে।

    অপরদিকে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে পিছিয়ে থাকা গাইবান্ধা জেলাবাসীর প্রত্যাশাও অনেক। এলাকার উন্নয়নের আশায় বুক বেঁধে বিভিন্ন দাবি-দাওয়া নিয়ে জনসভায় যোগ দিতে প্রস্তুত হচ্ছেন এ এলাকার মানুষ। গাইবান্ধা নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম গোপাল জানান,  গাইবান্ধার ব্রহ্মপুত্র নদে বালাসী বহুমুখী সেতু নির্মাণ, কৃষি ইনস্টিটিউটকে কৃষি কলেজে রূপান্তর, ইপিজেড প্রকল্প, আইসিটি পার্ক, গাইবান্ধা আদর্শ কলেজকে সরকারিকরণ, শহরে বাইপাস নির্মাণ, অসমাপ্ত ৪টি সেতুর নির্মাণ সম্পন্ন, পলাশবাড়ী-গাইবান্ধা আঞ্চলিক মহাসড়ককে জাতীয় মহাসড়কে উন্নীত  করাসহ বিভিন্ন দাবি-দাওয়া জানাবেন। সফর উপলক্ষে সারাশহরকে ব্যানার ফেস্টুনে সাজানো হয়েছে বলে জানা যায়।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here