অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থে ব্যর্থ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ

    0
    5

    আমারসিলেট 24ডটকম,১০অক্টোবর,কানাইঘাট প্রতিনিধি:কানাইঘাটে এক দোকান কর্মচারীর সাথে অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থের ব্যর্থ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রামবাসীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ, দোকান ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। বুধবার রাত অনুমান ৮টার দিকে পৌর শহরের কানাইঘাট বাজারে এ ঘটনাটি ঘটে। বাজার ব্যবসায়ী ও অন্যান্য সূত্রে জানা যায়, নন্দিরাই গ্রামের ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের বিপনী বিতান ষ্টোরের কর্মচারী সাহাব উদ্দিন প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে পার্শ্ববর্তী নদীর ঘাটে যায়। এসময় দুর্লভপুর গ্রামের জনৈক রহমত আলী অসৎ উদ্দেশ্যে উক্ত কর্মচারীকে ঝাপটে ধরে এবং টানা-হেঁচড়া করে অন্যত্র নিয়ে যেতে চাইলে তার সুরচিৎকারে লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করেন।

    কর্মচারী সাহাব উদ্দিন ও ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পেরে আনোয়ার রহমত আলীকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে উভয় গ্রামের লোকজন বাজারে সংঘটিত হতে থাকে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে উভয় গ্রামের লোকজনকে বাজার থেকে বের করে দেয়। এর কিছুক্ষণ পর দুর্লভপুর গ্রামের উশৃঙ্খল জনতা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মিছিল সহকারে বাজারে প্রবেশ করে এবং নন্দিরাই গ্রামের ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন, গোলাম আম্বিয়া, সাহাব উদ্দিন, মঞ্জুর, সিরাজ ও ফজলে রাব্বির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বেশ কয়েকটি ফুটপাতের টং দোকানে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করে।

    এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম.সোহরাব হোসেন ও ওসি তদন্ত বজলার রহমানের উপস্থিতিতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে। দোকান পাট ভাংচুর ও লুটপাটের এ খবর পেয়ে নন্দিরাই গ্রামের উত্তেজিত জনতা পুলিশের বেষ্টনি ভেদ করে বাজারে ঢুকে পাল্টা দুর্লভপুর গ্রামের ব্যবসায়ীদের কয়েকটি দোকানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ২৬৩টি রাউন্ড রাবার বুলেট ও ১২টি টিআর শেল নিক্ষেপ করে পুরো বাজার তাদের নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে। সংঘর্ষের খবর পেয়ে রাত ১০টায় সহকারী পুলিশ সুপার মহি উদ্দিন একদল দাঙ্গা পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

    এ ছাড়া বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য পৌর মেয়র লুৎফুর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, ইঞ্জিনিয়ার মাহমুদ হোসেন, হাজী আব্দুল হেকিমসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ গতকাল বিকেল ৩টায় কানাইঘাট ডাক বাংলায় এক বৈঠকে বসেন। বৈঠকে উভয় গ্রাম থেকে ১১জন করে মোট ২২জনকে নিয়ে একটি সালিশ বোর্ড গঠন করা হয়েছে। যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পৌর শহরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয় নি।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here