অপুর কাছে সন্তানের থেকে ক্যারিয়ার বড় ? বুবলী

    0
    8

    আমার সিলেট টুয়েন্টি ফোর ডটকম,১১এপ্রিল,ডেস্ক নিউজঃ  চিত্রনায়ক শাকিব খান ও চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের বিয়ে-সন্তান নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি।

    সোমবার বেসরকারি টেলিভিশনের একটি লাইভ অনুষ্ঠানে শাকিব-অপুর বিয়ে ও সন্তানের কথা জানিয়েছেন অপু বিশ্বাস। তারপর এ নিয়ে চলছে জোর আলোচনা।

    কিছুদিন আগে নবাগত চিত্রনায়িকা শবনম বুবলীকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন অপু। এমনকি শাকিব খানের পাশে বুবলীকে দেখতে চাইনা বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এ নিয়েও কাদা ছুড়াছুড়ি কম হয়নি। বুবলী ‘বসগিরি’ সিনেমার মাধ্যমে ঢালিউডে পা রাখেন। তবে ‘বসগিরি’ সিনেমাটি তার সিনেমা বলে দাবি করেন অপু।

    লাইভে এসে সোমবার অপু তার বিয়ে ও সন্তান নিয়ে কথা বলার পর অনেকে এ বিষয়ে বুবলীর কাছে তার মন্তব্য জানতে চান।  তবে এসব বিষয়ে তিনি সংবাদমাধ্যমে কিছু বলেননি। মঙ্গলবার বুবলী তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এ নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। পাঠকদের জন্য তা হুবহু তুলে ধরা হলো।

    ব্যাপারটা কী ইমোশনাল নাকি প্রফেশনাল ?? কোনটা ?

    হুমম একটু ভেবে বললে ভালো (যদি সময় হয় কারণ সবাই এখন ব্যস্ত থাকেন )। জানি , আপনারা এখন অনেকেই অনেক কিছু ভাবছেন। আমাদের দেশে মাঝেমাঝে কিছু কিছু ইস্যু সবার সামনে এসে দাঁড়ায় যখন অধিকাংশ ( সবাই না ) মানুষ হুমড়ি খেয়ে এক তরফা বিচার করতে শুরু করে। আর এদের মধ্যে যারা একটু ভিন্নভাবে ভাবতে চায় তাদের যে কত কথা শুনতে হয় তা না হয় নাই বললাম। একদম সাম্প্রতিক ইস্যু নিয়ে যদি কথা হয় তা হলে আমার মন্তব্য না করাটাই শ্রেয়। কারণ এটি সম্পূর্ণ যার যার ব্যক্তিগত ব্যাপার, আর আমি স্বভাবতই নিজের মতো থাকতে পছন্দ করি কিন্তু যখন সেখানে আমার কিছু ইস্যু মানুষ নিয়ে আসে তখন তো সেখানে স্বাভাবিকভাবে অনেকেই জানতে চাইছে এবং অনেকের ফোনে জানতে চাইছে এসব বিষয় আমি কিভাবে দেখছি!

    আমি প্রথমেই একটা জিনিস জানতে চাই, গতকাল কেন অপু বিশ্বাস এতো দিনের আড়াল ভেঙে সরাসরি চ্যানেলে গিয়ে এসব কথা বললেন ?

    কই এতোদিন তো যাননি , কারো সামনে আসতে চাননি.. কেনো ?

    কই সাংবাদিক ভাইরা তো এতো চেষ্টা করেও সামনে আনতে পারলেন না, মুখ খোলাতে পারলেন না, বরং আপনারা নাকি যখন জিজ্ঞেস করেছেন তখন নাকি নানা কথা বলেছে। তার ভাষ্যমতে, ২০০৮ সাল থেকে সে বিবাহিত তা হলে এতোদিন কেনো মর্যাদা চায়নি? শাকিব না হয় লুকিয়েছে, সে লুকায়নি? কেনো ক্যারিয়ারের জন্য ?

    একজন বউয়ের কাছে ক্যারিয়ার এতোই বড়?

    ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবা ঠিক আছে কিন্তু নিজের মর্যাদা আদায়ের আগে কি ক্যারিয়ার? অপু বিশ্বাস আরো বলেছেন তার সাথে শাকিবের গত এক বছরের মতো কথা হয় না, এটা কি কোনো সম্পর্কের জন্য স্বাভাবিক ? তখনো তো স্বীকৃতি চাইতে সবার সামনে আসল না। কেনো?

    সে আরো বলল তার প্রসব হয়েছে গত বছর সেপ্টেম্বরে তা হলে তখন আসল না স্বীকৃতির জন্য। কেনো ? শাকিব না হয় লুকিয়েছে, সে লুকায়নি?

    একজন মায়ের কাছে কি সন্তানের থেকে ক্যারিয়ার বড়? কই গত পরশুদিন পর্যন্ত তো সে বাচ্চাটির স্বীকৃতি চাইল না !

    এবার আসি কেনো আসলেন সামনে…

    সোমবার যখন একটি পত্রিকায় নিউজ হলো ‘রংবাজ’ সিনেমা নিয়ে, তখন তার নাকি মাথা খারাপ হয়ে গেল আমার নাম দেখে। সে চায় না শাকিব বুবলী একসাথে কাজ করুক , সে শাকিবকে লোক মারফতে জানাল ( যেহেতু সেই বলেছে শাকিব আর তার নাকি কথা হয় না এক বছরের মতো ) তাকে নিয়ে একটি সিনেমা নিউজ করাতে না হয় আমাকে নিয়ে ছবির নিউজ বন্ধ করাতে না হলে এটার শেষ দেখে ছাড়বে সে।

    আজকে এখানে বুবলী না থেকে অন্য কেউ থাকতে পারত যার সাথে শাকিবের জুটি গড়ে উঠেছে , অপু বিশ্বাস যেটা আগের অনেক নায়িকাদের ক্ষেত্রে করতে দেয়নি যা শাকিব নিজেই বলেছে…

    কেন রাজ্জাক স্যার শাবানা ম্যাডাম , রাজ্জাক স্যার ববিতা ম্যাডাম, রাজ্জাক স্যার  কবরী ম্যাডাম জুটি ছিলেন না ?
    রিয়াজ ভাই শাবনুর আপু, রিয়াজ ভাই পূর্নিমা আপু জুটি ছিলেন না ?

    এমন তো অনেক উদাহরণ আছে , কিন্তু অপু বিশ্বাস তার বাইরে কোনো জুটি প্রতিষ্ঠা হোক এমনটি চায়নি বলেই কি তার মর্যাদা এতোদিন চাইল না আর সন্তানের স্বীকৃতি এতোদিন চাইল না ।

    তাহলে কি ! সে এক্সারসাইজ করে নাকি ফিট হয়ে এসে আবার শাকিবের সাথে সিনেমা করত। তা হলে তার মর্যাদা আদায়ের কথা না হয় বাদ দিলাম, তার বাচ্চাটির স্বীকৃতি কোথায় যেত ?
    এরকম চাপাই থাকত ! আজকে এই সিনেমা করা নিয়েই তো এতো কিছু, তাকে নিয়ে সিনেমার ঘোষণা আসলে কি সে বাচ্চার স্বীকৃতি চাইতো ?
    লুকিয়ে রাখতো না ?

    ধরলাম শাকিব না করেছে বলতে কিন্তু মা হয়ে সে কি করল ?

    এখন সিনেমা নিয়ে সমস্যা হয়েছে বলে সবার সামনে এসে সব বলছে?

    সে সব জায়গায় বেশ কিছুদিন ধরে বলে আসছে তার সিনেমা করেছি আমি। তাই আমি হতে পেরেছি। আরে বাবা, পৃথিবীর অনেক দেশেই তো অনেকের পরিবর্তে অনেকে সিনেমা করছে বলিউড সুপারস্টার থেকে শুরু করে ঢালিউড পর্যন্ত, এমনকি অপু বিশ্বাস নিজেও অন্য অনেকের পরিবর্তে সিনেমা করেছে। তা হলে এখানে এসব অযৌক্তিক কথা বলার মানে কী?

    একজন মানুষকে তারকা বানায় তার দর্শকরা, তার ভক্তরা । যার জন্য আমি আমার দর্শক এবং আমার ভক্তদের কাছে কৃতজ্ঞ এতো অল্প সময়ে আমাকে এতো ভালোবাসা দেবার জন্য। আর আজকে আমি ‘বসগিরি’ দিয়ে অভিষেক না করলে ‘প্রিয়া রে’ সিনেমা দিয়ে আসতাম কারণ সব প্রস্তুতি সেভাবেই নেয়া হয়েছিল। যা ওই সিনেমার পরিচালক, প্রযোজক থেকে শুরু করে অনেকেই জানেন।‘প্রিয়া রে’ তো অন্য কারো সিনেমা ছিল না, তখন সে কি বলতো ?

    যাই হোক, যে কেউ দর্শক হিসেবে যে কোনো মন্তব্য করতে পারেন সহজে কিন্তু একমাত্র তারাই ভালো বলতে পারেন সবকিছু যখন যারা যেসব অবস্থার মধ্য দিয়ে যান। আর আমাকে নিয়ে কেউ যখন সারাক্ষণ কথা বলে তখন আই হ্যাভ রাইট টু ক্লিয়ার অ্যান্ড আই জাস্ট ট্রাইড টু ডু..। আর হ্যাঁ সহশিল্পীদের সবার সাথে সবার ভালো বোঝাপড়া থাকে যেটা আমার সাথে শাকিবের আছে এবং থাকবে। তাকে অনেক শ্রদ্ধা করি যেটা একদিনে তৈরি হয় না যে একদিনে কমে যাবে। কারণ শাকিব খান আমাদের গর্ব।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here