অনিবন্ধিত মোবইল সিম কার্ড অবিলম্বে বন্ধ করার নির্দেশ

    0
    6

    আমারসিলেট24ডটকম,০১এপ্রিলঃ নিবন্ধন ছাড়া অর্থাৎ অনিবন্ধিত সব মোবইল সিম কার্ড অবিলম্বে বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে  দেশের হাইকোর্ট। একই সাথে নিবন্ধন ছাড়া মোবাইল সিম কার্ড বিক্রি ও বিতরণ বন্ধ করতে কেন নির্দেশনা দেয়া হবে না, রুলে তা জানতে চাওয়া হয়েছে। বিটিআরসির চেয়ারম্যান, স্বরাষ্ট্রসচিব, ডাক ও টেলিযোগাযোগসচিবসহ বিবাদীদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আজ মসঙ্গলবার বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি পর রুলসহ এ নির্দেশ দিয়েছেন। গ্রামীণফোন লিমিটেড, ওরাসম টেলিকম বাংলাদেশ লিমিটেড (বাংলালিংক), টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড, আজিয়াটা বাংলাদেশ লিমিটেড (রবি), এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড ও প্যাসেফিক বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিটিসেল) প্রতি নিবন্ধনহীন সিম কার্ড অকার্যকর করতে নির্দেশ দেয়া হয়।
    আদেশের পর এম বদরুদ্দোজা সাংবাদিকদের বলেন, গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে দেখা যায় নিবন্ধন ছাড়া প্রায় ৭০ লাখ সিম কার্ড রয়েছে। অনিবন্ধিত সিমের মাধ্যমে বিভিন্নভাবে হুমকি ও চাঁদাবাজি করা হয়। এ কারণে নিবন্ধনহীন সিম কার্ড বন্ধ করার নির্দেশনা চেয়ে রিটটি করা হয়েছে। আল আমীন সরকার বলেন, কোনো সিম কার্ডের বিরুদ্ধে কোনো ব্যক্তি অভিযোগ করলে ওই সিম কার্ডের বিষয়ে সব তথ্য প্রদান করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছেন আদালত। এর আগে নিবন্ধনহীন সিম কার্ড বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে গত মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে রিটটি করেন আইনজীবী জে আর খান রবিন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এম বদরুদ্দোজা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. আল আমিন সরকার।
    পাশাপাশি অনিবন্ধিত সিম কার্ডধারী ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ফৌজদারি কার‌্যবিধি অনুসারে ব্যবস্থা শুরু করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, তাও জানতে চেয়েছে আদালত। চার সপ্তাহের মধ্যে বিবাদীদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। প্রসঙ্গত রেজিস্ট্রেশনবিহীন ৭০ লাখ মোবাইল সিমের সন্ধান শিরোনামে কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন যুক্ত করে এ রিট আবেদনটি করা হয়।
    আদালতের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিটিআরসি জানিয়েছে, দেশে বর্তমানে বিভিন্ন মোবাইল অপারেটরের প্রায় ১১ কোটি গ্রাহক রয়েছে। এর মধ্যে ৭০ লাখের বেশি সিম ব্যবহার হচ্ছে রেজিস্ট্রেশন ছাড়াই। নীতিমালা অনুযায়ী কোনো মোবাইল অপারেটর রেজিস্ট্রেশন ছাড়া সিম বিক্রি করতে পারবে না। বিটিআরসির নীতিমালাকে কোন প্রকার তোয়াক্কা না করে অলিগলি থেকে শুরু করে সর্বত্র (ফ্লেক্সিলোডের দোকানে) বিক্রি হচ্ছে রেজিস্ট্রেশনবিহীন সিম। ফলে একদিকে সরকার বিরাট অঙ্কের রাজস্ব হারাচ্ছে, অন্যদিকে মোবাইল অপরাধ বেড়ে যাচ্ছে। অনিবন্ধিত এ সব সিমের বড় অংশ রয়েছে অপরাধীদের হাতে বলেও আদালতের  প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here